নয়াদিল্লি: মঙ্গলবারই দেড় ঘণ্টার সাক্ষাৎকারে রাফায়েল প্রসঙ্গে সরকারের নির্দোষ থাকার কথা বলেছিলেন মোদী। এরপর বুধবারেই এক গোপন অডিও টেপ প্রকাশ্যে এনে বিজেপিকে বিপাকে ফেলার চেষ্টা করে কংগ্রেস। বাক-বিতণ্ডা গড়ায় লোকসভা পর্যন্ত। রাহুল গান্ধী ও অরুণ জেটলির এই ইস্যু নিয়ে আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণে নামেন।

রাহুল বলেন, ”প্রধানমন্ত্রীর লোকসভায় আসার সাহস নেই। উনি নিজের ঘরে লুকিয়ে আছেন।” প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে আক্রমণ করতেও ছাড়েননি তিনি। বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী এআইএডিএমকে সাংসদদের পিছনে লুকিয়ে আছেন। এই বিষয়ে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত ক্যাবিনেট কমিটির কাছেও কোনও তথ্য নেই বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতের জন্য তৈরি রাফায়েল যুদ্ধবিমানের ফার্স্ট লুক

রাহুল এদিন ফের দাবি করেন, ইউপিএ ৫২৬ কোটি টাকায় যে এয়ারক্রাফট কিনত, সেই চুক্তি মোদী করেছেন ১৬০০ কোটি টাকায়। এই বরাত কেন HAL-কে না দিয়ে অনিল অম্বানিকে দেওয়া হল, সেই প্রশ্নও তুলেছেন তিনি।

মঙ্গলবারের সাক্ষাৎকারে মোদী দাবি করেন, কেউ রাফায়েল চুক্তি নিয়ে প্রশ্ন তুলছে না।

এদিকে, বুধবার বছরের দ্বিতীয় দিনে একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে আনে কংগ্রেস৷ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে রণদীপ সুরজেওয়ালা দাবি করেন, কিছুদিন আগেই গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্কর রাফায়েল নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন৷ যেখানে তিনি বলেছেন, কেউ কিছু করতে পারবে না, সব ফাইল তাঁর কাছে আছে, (‘মেরে বেডরুম মে রাফায়েল কি ফাইল’)৷

কংগ্রেস নেতা সুরজেওয়ালা গোয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিত রাণের একটি কথাবার্তার অডিও প্রকাশ্যে আসেন৷ সুরজেওয়ালা প্রশ্ন তোলেন, মনোহর পারিক্করের কাছে এমন কোন রহস্যজনক রাফায়েল ফাইল রয়েছে?

তবে গোয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী কার সঙ্গে ফোনে কথা বলছিলেন সে বিষয়ে অবশ্য কিছু বলেননি তিনি৷ তিনি অবশ্য একথা জানিয়ে দেন, ২০১৫ সালের ১০ এপ্রিল ফ্রান্সে রাফায়েল চুক্তির ঘোষণা হয়েছিল৷ সে সময় বারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন মনোহর পারিকর৷

--
----
--