মস্কো: শনিবার কাজানে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছে ফ্রান্স৷ ম্যাচের প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর ৫৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে গ্রিজমান এগিয়ে দেন ফরাসি দলকে৷ ৬২ মিনিটে পেনাল্টি থেকেই গোল করে অস্ট্রেলিয়াকে সমতায় ফেরান জেডিনাক৷ ৮০ মিনিটে ফ্রান্সের হয়ে জয়সূচক গোল করেন পোগবা৷ ফাদার্স ডে’র গিফট হিসাবে বাবাকে সেই গোল উৎসর্গও করেন ম্যান ইউ তারকা৷ যদিও পোগবার গোল নিয়ে সংশয় ছিল ফিফার মনে৷ শেষমেশ যাবতীয় সংশয় দূর করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছয় আন্তর্জাতিক ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা৷ তারা পোগবার কাছ থেকে গোলের কৃতিত্ব কেড়ে নেওয়াই উচিত মনে করে৷

পোগবার গোল নিয়ে প্রাথমিকভাবে প্রশ্ন তুলেছিলেন তাঁর ক্লাব কোচ মোরিনহো৷ তাঁর মতে গোলটির পিছনে পোগবার যতটা না কৃতিত্ব আছে, তার থেকে অনেক বেশি দায়ি অস্ট্রেলিয়া ডিফেন্ডার আজিজি বেহিচের ফাইনাল টাচ৷ পোগবার চিপ আজিজের পায়ে লেগেই অজি গোলকিপারের মাথার উপর দিয়ে গিয়ে প্রতিহত হয় ক্রসবারে৷ তবে মাটিতে ড্রপ করার সময় গোললাইন পার করে যায়৷

Advertisement

ফিফা প্রাথমিকভাবে গোলটিকে পোগবার গোল হিসাবেই চিহ্নিত করে৷ তবে পরে ভিডিও বিশ্লেষণে নিজেদের ভুল শুধরে নেন ফিফা অফিসিয়ালরা৷ ফিফার তরফে পরে গোলটিকে আজিজের আত্মঘাতী গোল হিসাবেই উল্ল্যেখ করা হয়৷

পোগবা অবশ্য তার জন্য বিন্দুমাত্র হতাশ নন৷ বরং দল ম্যাচ জেতার তিনি খুশি প্রকাশ করেছেন৷ গোলের কৃতিত্ব হাতছাড়া হওয়া প্রসঙ্গে পোগবা বলেন, ‘অস্বীকার করার জায়গা নেই আমার গোলটির ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া ডিফেন্ডারের সাহায্য ছিল৷ তবে গোল যেভাবেই আসুক না কেন, দল পুরো পয়েন্ট ঘরে তুললে দারুণ লাগে৷ দিনের শেষে সেদিকেই লক্ষ্য থাকে সবার৷ আমি তো মনে করি যে, আপনি নিজে গোল করুন বা অন্য কাউকে দিয়ে গোল করান, পা দিয়ে গোল করুন অথবা কান বা নাক দিয়ে, আসল করা হল দলের জয়৷ বিপক্ষের জালে বল জড়ানো এবং ম্যাচ জয়, এগুলিই হল আসল বিষয়৷ ম্যাচটা জিতে মাঠ ছাড়তে পারায় আমি ভীষণ খুশি৷’

----
--