স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: লিক হওয়া গ্যাস সিলিন্ডারটিকে কেন গঙ্গায় ফেলা হল, তা জানতে চেয়ে গ্রিন ট্রাইবুন্যাল অ্যাক্টে পুলিশ ও দমকলের বিরুদ্ধে মামলা করতে চলেছেন পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত৷ এদিকে কারখানা থেকে ক্লোরিন গ্যাস নির্গত হওয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার নতুন করে দু’জন ফের অসুস্থ হয়ে পড়েছেন৷ ঘটনার জেরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়৷ এদিকে কি কারণে গ্যাস লিকের ঘটনা তা জানতে হাওড়ার ওই কারখানায় যান ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের একটি দল৷ এদিনই গঙ্গা থেকে তোলা হয়েছে সংশ্লিষ্ট সিলিন্ডারটি৷

পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত বলেন, ‘‘পুলিশ ও দমকল কর্তৃপক্ষ দূষিত গ্যাস সিলিন্ডারটিকে গঙ্গায় ফেলে গঙ্গাকে আরও দূষিত করলেন৷ তাই ঘটনার প্রতিবাদে আমি আদালতের দ্বারস্থ হব৷’’ যদিও এবিষয়ে হাওড়া পুলিশ বা দমকলের কারও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি৷

Advertisement

হাওড়ার বেলুড়ের গিরীশ ঘোষ রোডে বজরংবলী এলাকায় সোমবার সকালে স্থানীয় একটি লোহা কাটাইয়ের কারখানায় গ্যাস লিক করে বহু মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এদের মধ্যে অনেকেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। প্রায় সাত ফুটের একটি পুরানো সিলিন্ডার ট্যাঙ্ক কাটাইয়ের সময় তার ভিতর থেকে আচমকা তীব্র ঝাঁঝালো গন্ধযুক্ত ক্লোরিন গ্যাস বেরতে শুরু করে। পুরো এলাকায় গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর উৎস খুঁজে পেয়ে লিকেজ মেরামতি করেন দমকল কর্মীরা। পরে সেটিকে আনা হয় বালির নতুন জগন্নাথ ঘাটে। কিন্তু সেখানেও ওই সিলিন্ডার ট্যাঙ্কের একটি মুখ দিয়ে পুনরায় গ্যাস বের হতে শুরু করে। এতে ফের নতুন করে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখনই গ্যাস সিলিন্ডারটিকে গঙ্গায় ফেলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ৷

----
--