ভিন রাজ্যের মোবাইল পাচার চক্রকে গ্রেফতার করল পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: অন্তর্দেশীয় মোবাইল পাচার চক্রের পাঁচ পান্ডাকে গ্রেফতার করল উত্তর ২৪ পরগনার খড়দা থানার পুলিশ৷ ওই চক্রের কাছ থেকে পুলিশ মোট ৩১ টি দামি মোবাইল ফোনও উদ্ধার করেছে৷

উদ্ধার হওয়া মোবাইল ফোন গুলি বেশির ভাগই উত্তর কলকাতা অঞ্চলের বাসিন্দাদের৷ ধৃত পাচারকারীদের নাম কুশল রাওয়াত, যোগেশ্বর নুনিয়া, রাহুল কুমার৷ বাকি দু’জন নাবালক৷

আরও পড়ুন: নির্মল জেলার সম্মান পেল বীরভূম

- Advertisement -

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর ২৪ পরগনার কামারহাটি ফাঁড়ি সংলগ্ন এলাকার একটি ভাড়া বাড়ি থেকে ওই মোবাইল পাচার চক্রের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করে পুলিশ৷ বুধবার গভীর রাতে সেখানেই পুলিশ অভিযান চালিয়েছিল৷ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে খড়দা থানায় নিয়ে আসে পুলিশ৷ ধৃতরা প্রত্যেকে ভিনরাজ্যের বাসিন্দা৷ তারা মোবাইল ফোন পাচারকারী চক্র হিসেবে এ রাজ্যে এসে কামারহাটি অঞ্চলে বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকত৷ ধৃত এই পাঁচ মোবাইল পাচারচক্রের মধ্যে দু’জন নাবালক দুষ্কৃতিও রয়েছে৷ ধৃতদের মধ্যে কুশল এবং যোগেশ্বরের বাড়ি উত্তর প্রদেশে৷ রাহুল-সহ বাকি তিনজন দুষ্কৃতির বাড়ি ঝাড়খণ্ডে৷

আরও পড়ুন: সংখ্যালঘু মহিলাদের ঋণ মমতার সরকারের

খড়দা থানার পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, হরিদর্শনের বয়স ১৪ বছর এবং বিকাশের বয়স ১২ বছর৷ এই আন্তর্দেশীয় মোবাইল পাচার চক্রের পান্ডারা কয়েকমাস আগে ১০০ টিরও বেশি দামী স্মার্ট ফোন কলকাতা বিমানবন্দর দিয়ে লখনউতে নিয়ে গিয়েছিল৷ পুলিশ ধৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারে, এক সঙ্গে চক্রের পাঁচজনই দামী মোবাইল ফোন ছিনতাই করত৷ তারা ছড়িয়ে থাকত ভিড় এলাকাগুলিতে৷ মোবাইল ছিনতাইয়ের পর সেই ফোন ওই নাবালকদের হাত দিয়ে নিরাপদ জায়গায় পাঠিয়ে দিত দুষ্কৃতিরা৷

ফলে মোবাইল চুরির পর মোবাইলের মালিক নির্দিষ্ট ভাবে কোনও ছিনতাইকারীকেই শনাক্ত করতে পারত না৷ পরে এক সঙ্গে অনেক মোবাইল নিয়ে উত্তর প্রদেশের লখনউতে কলকাতা বিমানবন্দর হয়ে পাচার করা হত৷ বর্তমানে এই পাচার চক্রের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ৩১ টি দামি স্মার্টফোন গুলি দমদম, বারাসাত, শোভাবাজার, সেন্ট্রাল, বাগুইহাটি এলাকা থেকে চুরি করা হয়েছিল বলে অভিযুক্তরা খড়দা থানার পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে৷

আরও পড়ুন: সুমেরু অভিযানে গিয়ে বরফে বিলীন বাঙালি গবেষক

Advertisement
---