কাজের লোভ দেখিয়ে নাবালিকাকে যৌনকর্মী বানালো দাদারা

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: অভাবের সংসারে মোটা টাকা বেতনের কাজের ব্যবস্থা করে দেবে বলেছিল পাড়ার দুই দাদা৷ বেঙ্গালুরুতে পরিচারিকার কাজ করে সংসারে টাকা জোগাবে বলে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল কলকাতার পশ্চিম বন্দর এলাকার ব্রুক লেনের বাসিন্দা এক নাবালিকা৷ তারপর কাজ পাইয়ে দেবে বলে যারা তাকে বেঙ্গালুরুর উদ্দেশ্যে নিয়ে গিয়েছিল, সেই পাড়ার দাদারাই তাকে নিয়ে গেল বেঙ্গালুরুর নিষিদ্ধপল্লীতে৷

আরও পড়ুন:ডেঙ্গু প্রসঙ্গে ফের সুর চড়াল বিজেপি

সেখানে দীর্ঘদিন আটকে রেখে জোর করে যৌনকর্মী হিসেবে কাজ করানো হয় তাকে৷ রাজি না হলে তার উপর চলে শারীরিক নির্যাতন৷ অবশেষে সুযোগ বুঝে বাড়িতে পালিয়ে আসে সেই নাবালিকা৷ বাড়ি ফিরে এসে পাড়ার সেই দাদাদের এলাকায় অবাধে ঘুরতে দেখে নিজেকে আর ঠিক রাখতে পারেনি সে৷ সোজা পশ্চিম বন্দর থানায় গিয়ে অভিযোগ করে সেই নাবালিকা৷ অভিযোগ পেয়েই পুলিশ শেখ সেলিম এবং জিকু মোল্লাকে গ্রেফতার করে৷ ৫ নভেম্বর পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে রয়েছে তারা৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: ১২৯০৪টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ssc’র

পুলিশ জানিয়েছে, নাবালিকার থেকে এই নারীপাচার চক্রের ব্যাপারে জানার পরে বেঙ্গালুরু রওনা দেয় পুলিশের একটি বিশেষ দল৷ সেখানে রামনগর জেলার বইদরহালি থানা এলাকার থেকে লিটন শেখ এবং ফিরদৌস নামে আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ ধৃতদের মধ্যে ফিরদৌস বাংলাদেশের বাসিন্দা বলে জানতে পেরেছে পুলিশ৷ সেই সূত্রে পুলিশ মনে করছে বাংলাদেশ থেকেও বেঙ্গালুরুতে মেয়ে পাচার করত এই চক্রটি৷ ধৃতদের তিনদিনের ট্রানজিট রিমান্ডে কলকাতায় নিয়ে আসা হচ্ছে৷

পুলিশ সূত্রের খবর, এই চক্রটি কলকাতা-সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে অভাবী ঘরের মেয়েদের কাজের টোপ দিয়ে বেঙ্গালুরুতে নিয়ে যেত৷ সেখানে নিয়ে যাওয়ার পরে নিষিদ্ধপল্লীতে বেঁচে দিত৷ জোর করে যৌনকর্মীর পেশায় নামানো হত৷ রাজি না হলে চলত অত্যাচার৷ ওই নাবালিকা পুলিশকে জানিয়েছে, কলকাতা থেকে বেঙ্গালুরুতে নিয়ে যাওয়ার সময়ই হাওড়া স্টেশন থেকে ট্রেনে আরও কয়েকজন তাদের সঙ্গে যোগ দেয়৷ রাস্তায় তাদের আসল চেহারা প্রকাশ না করলেও বেঙ্গালুরু পৌঁছে আসল রূপ ধারণ করে তারা৷ এই নাবালিকা উপস্থিত বুদ্ধি প্রয়োগ করে পালিয়ে আসতে পারলেও, অন্য অনেকেই বাধ্য হয়েছে যৌনকর্মী হয়ে থাকতে৷ ডিসি (পোর্ট) ওয়াকার রেজা বলেন, ‘‘আমরা এই নারীপাচার চক্রের মূল পান্ডাকে গ্রেফতার করে তাদের শিকড় উপড়ে ফেলতে চাইছি৷’

Advertisement
---