দোষী ডাক্তার রোগী দেখছেন, আদালতের নির্দেশেও নিষ্ক্রিয় পুলিশ

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: এক মাস পেরিয়ে গেলেও আদালতের নির্দেশ মানছে না পুলিশ৷ এমনকি, পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোনও উত্তর দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ৷ আর, তারই জেরে, পুলিশকেই পাঠানো হল আইনি নোটিস৷

এবং, এই নোটিস পাওয়ার পরবর্তী সাতদিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া না হলে, পুলিশের বিরুদ্ধেই ফের আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হল৷ এই বিষয়ে পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে৷

ঘটনার সূত্রপাত মেডিক্যাল রেজিস্ট্রেশন নম্বর বাতিল হয়ে যাওয়া এক চিকিৎসককে কেন্দ্র করে৷ যার জেরে, প্রথমে বিধাননগর উত্তর থানায় অভিযোগ দায়ের করে পিপল ফর বেটার ট্রিটমেন্ট (পিবিটি)৷ অথচ, পুলিশের তরফে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না, এই অভিযোগে আদালতের দ্বারস্থ হয় এই সংগঠন৷ যার জেরে, ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে যাতে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে পুলিশ, তার জন্য গত পাঁচ মে নির্দেশ দেয় আদালত৷

- Advertisement -

পিবিটির সভাপতি চিকিৎসক কুণাল সাহার কথায়, ‘‘চিকিৎসায় অবহেলার কারণে গত বছরের জুন মাসে চিকিৎসক বরুণ চক্রবর্তীর মেডিক্যাল রেজিস্ট্রেশন নম্বর এক বছরের জন্য বাতিল করে দিয়েছে ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিল৷ অথচ, এই বছরের জানুয়ারি মাসে আমরা জানতে পারি, সল্টলেকের অ্যাপোলো ক্লিনিকে এই চিকিৎসক প্র্যাকটিস করছেন৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘প্রয়োজনীয় প্রমাণ সহযোগে এই চিকিৎসকের নামে আমরা বিধাননগর উত্তর থানায় এই বছর মার্চ মাসে অভিযোগ দায়ের করেছিলাম৷ কিন্তু, পুলিশ কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ না করায়, আমরা আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলাম৷’’

চিকিৎসক কুণাল সাহা বলেন, ‘‘অবিলম্বে এই চিকিৎসক এবং ক্লিনিকের বিরুদ্ধে পুলিশকে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য গত পাঁচ মে নির্দেশ দিয়েছেন বিধাননগরের অ্যাডিশনাল সিজেএম৷ অথচ, একমাস পেরিয়ে গেলেও আদালতের এই নির্দেশ মানছে না পুলিশ৷’’ শুধুমাত্র এমনও নয়৷ পিবিটির সভাপতি বলেন, ‘‘পুলিশকে আমরা গত পাঁচ জুন আইনি নোটিস পাঠিয়েছি৷ এক সপ্তাহের মধ্যে পুলিশ যদি কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ না করে, তা হলে, সাধারণ মানুষের স্বার্থে, আদালত অবমাননার বিষয়টি উত্থাপন করে পুলিশের বিরুদ্ধে ফের আদালতের দ্বারস্থ হওয়া ছাড়া আমাদের সামনে অন্য আর কোনও পথ নেই৷’’

চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বলেই এই চিকিৎসকের লাইসেন্স অর্থাৎ, মেডিক্যাল রেজিস্ট্রেশন নম্বর এক বছরের জন্য বাতিল করে দিয়েছে ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিল৷ স্বাভাবিক কারণেই, প্রথমে অভিযোগ পাওয়া এবং তার পরে আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও যেভাবে এই চিকিৎসক নামকরা বেসরকারি ওই ক্লিনিকে চিকিৎসা পরিষেবা দিচ্ছেন, তার জেরে ওয়াকিবহাল মহলের বিভিন্ন অংশেও পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ উঠছে৷

Advertisement ---
---
-----