ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে ধন্দে পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার৷ কে বা কারা ওই ছাত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে তা স্পষ্ট নয়৷ মৃত্যুর কারণ সম্পর্কেও ধন্দ দেখা দিয়েছে৷ পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্রর নাম সাহিন শেখ৷ তাঁর পকেট থেকে কীটনাশকের শিশি পাওয়া গিয়েছে৷ স্বাভাবিকভাবেই পুলিশের অনুমান, কীটনাশক খেয়েই আত্মঘাতী হয়ে থাকতে পারে ওই পড়ুয়া৷ মৃত ছাত্রের বাড়ি বর্ধমানের মঙ্গলকোট থানার গোতিষ্ঠা গ্রামে৷ সে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পড়ুয়া ছিল৷ স্বাভাবিকভাবেই বাঁকুড়ায় সে কি করে এলো তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷

যদিও একটি সূত্রে পুলিশ জানতে পেরেছে, বাঁকুড়ার একটি মেয়ের সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ওই পড়ুয়ার৷ পুলিশের অনুমান, প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতেই সে বাঁকুড়ায় এসেছিল৷ শনিবার রাতে গুরুতর অবস্থায় তাকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। তবে হাসপাতালে কে বা কারা তাঁকে ভর্তি করেছে তা স্পষ্ট নয়।

মৃতের পরিবারের দাবি, কেউ নাম গোপন করেই সাহিনকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে৷ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷ কিভাবে ওই পড়ুয়ার মৃত্যু হল তা জানতে সাহিনের বান্ধবীর খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ৷ তদন্তকারী এক পুলিশ অফিসারের কথায়, ‘‘মৃত ছাত্রের প্রেমিকের খোঁজ পেলেই মৃত্যু রহস্যের জট কেটে যাবে৷’’ ইতিমধ্যে ওই ছাত্রের ফোনের কল লিস্ট খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷ এদিকে সাহিনের মৃত্যুর ঘটনার তাঁর পরিবার ও সহপাঠীদের মধ্যে নেমে এসেছে শোকের ছায়া৷