ফাইল চিত্র৷

জলপাইগুড়ি: জেলায় টেমস নামে পরিচিত করলা নদী৷ অথচ জলপাইগুড়িবাসীর অভিযোগ, এ নদীতে দূষণ থাবা বসালেও তা নিয়ে কোনও হেলদোল নেই প্রশাসনের৷ জলপাইগুড়ি শহরের মধ্য দিয়ে বয়ে চলা করলা নদীর দূষণ বাড়ছে প্রতিদিন পাল্লা দিয়ে৷

করলা নদীর ধারে শহরের প্রধান বাজার দিনবাজার। আর এই দিনবাজারের মাছ বাজার থেকে প্রতিদিনই নদীবক্ষে মাছ সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত থার্মোকলের বাক্স-সহ বর্জ্য, আবর্জনা ফেলা চলছে৷ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তরফে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার আশ্বাস দেওয়া হলেও বাস্তব পরিস্থিতির কোনও বদল ঘটেনি৷ ইতিমধ্যেই করলা হারিয়েছে তার নাব্যতা।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘রাজ্যহারা’ পাকিস্তানের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইশক দার

ফলে সামান্য বৃষ্টিতে নদীর জল ফুলে ফেঁপে উঠে নদী সংলগ্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। করলা নদীর দূষণ রোধে রাজ্য সরকারের তরফে একাধিকবার মন্ত্রীরা নানান প্রতিশ্রুতি শোনালেও করলা কাজের কাজ কিছুই হয়নি বলে অভিযোগ। এই প্রসঙ্গে দিনবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যরা জানান, বাজার সমিতির তরফে একাধিকবার ব্যবসায়ীদের কাছে নদী দূষণ ঠেকাতে আবেদন জানানো হলেও বাস্তব চিত্রের কোনও বদল ঘটেনি৷

এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট পুরসভাও প্রয়োজনীয় দায়িত্ব পালন করেছে না বলে অভিযোগ ব্যবসায়ীদের৷ তবে মাছ ব্যবসায়ীরাও করলা নদীতে থার্মোকলের বাক্স ফেলার বিরোধীতা করেছেন। যে ব্যবসায়ীরা এই অন্যায় কাজ করে যাচ্ছেন তাদের চিহ্নিত করে শাস্তি দেওয়ার দাবিও জানান তাঁরা৷

আরও পড়ুন: Breaking: খুব শীঘ্রই পেট্রল পাওয়া যাবে ৫৫ টাকায়: গড়কড়ি

----
--