বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের সৌজন্যে এ বার দেশের গরিব, অসহায় মানুষও বেসরকারি হাসপাতালে হাঁটু প্রতিস্থাপনের চিকিৎসা করাতে পারবেন৷ এমনই বলছে পশ্চিমবঙ্গের গেরুয়া শিবির৷

তবে, শুধুমাত্র হাঁটু প্রতিস্থাপনের চিকিৎসাও নয়৷ হৃদযন্ত্র সংক্রান্ত কোনও সমস্যায় অস্ত্রোপচার সহ ব্যয়বহুল অন্য নানা চিকিৎসা পরিষেবার সুযোগও গরিব, অসহায় মানুষ এ বার বেসরকারি হাসপাতালে পাবেন বলে রাজ্য বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে৷ কারণ, ন্যাশনাল হেলথ প্রোটেকশন স্কিম৷ মোদী সরকারের শেষ পূর্ণাঙ্গ বাজেটে বৃহস্পতিবার এই স্কিমের ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ এই ঘোষণা অনুযায়ী দেশের ১০ কোটি গরিব এবং অসহায় পরিবারের জন্য বছরে পাঁচ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্য বিমার ব্যবস্থা হচ্ছে৷ প্রতি পরিবারে গড়ে পাঁচ জন সদস্যের হিসাবে মোট ৫০ কোটি মানুষ এই স্কিমের মাধ্যমে সুবিধা পাবেন বলে জানানো হয়েছে৷

Advertisement

রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি ডাক্তার সুভাষ সরকারের কথায়, ‘‘এই বিমার মাধ্যমে ৫০ কোটি মানুষ অর্থাৎ, দেশের ৪০ শতাংশ মানুষের জন্য চিকিৎসা পরিষেবার ব্যবস্থা করা হল৷ এর আগে রাষ্ট্রীয় স্বাস্থ্য বিমা যোজনার মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকার ব্যবস্থা হয়েছিল৷ কিন্তু, পাঁচ লক্ষ টাকার জন্য গরিব মানুষও এ বার হাঁটু প্রতিস্থাপন, হৃদযন্ত্রের কোনও অস্ত্রোপচার সহ ব্যয়বহুল অন্য নানা চিকিৎসার সুযোগ পাবেন৷ দেশ নিশ্চিতভাবে এগোচ্ছে৷ এ বারের কেন্দ্রীয় বাজেট আমজনতার জন্য৷’’ বাজেটে ঘোষণা অনুযায়ী সেকেন্ডারি লেবেল অর্থাৎ, মহকুমা, স্টেট জেনারেল, জেলা সদর হাসপাতাল এবং টার্শিয়ারি লেবেল অর্থাৎ, মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল এবং চিকিৎসা-শিক্ষা সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠান, এই সব সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার ক্ষেত্রে প্রতি বছরে এই পাঁচ লক্ষ টাকার বিমার বিষয়ে বলা হয়েছে৷

কিন্তু, পশ্চিমবঙ্গের এই দুই স্তরের সরকারি চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানকারী কেন্দ্রগুলিতে পরিকাঠামোগত বিভিন্ন ধরনের খামতির অভিযোগ রয়েছে খোদ সরকারি-বেসরকারি ডাক্তারদেরই বিভিন্ন সংগঠনের তরফে৷ তার উপর, সেকেন্ডারি লেবেলের হাসপাতালগুলিতে হাঁটু প্রতিস্থাপন অথবা হৃদযন্ত্র সংক্রান্ত কোনও সমস্যা কিংবা অন্য বিভিন্ন ব্যয়বহুল চিকিৎসার সুযোগ কতটা রয়েছে চালু পরিকাঠামো অনুযায়ী? রাজ্য বিজেপির ডক্টরস সেলেরও দায়িত্বে রয়েছেন ডাক্তার সুভাষ সরকার৷ তিনি বলেন, ‘‘রাষ্ট্রীয় স্বাস্থ্য বিমা যোজনার মতো এই ন্যাশনাল হেলথ প্রোটেকশন স্কিমের জন্যেও যে হাসপাতাল নথিভুক্ত করাবে, সেখানে সুবিধা মিলবে৷ বেসরকারি যে সব হাসপাতাল এই স্কিমের অধীনে নথিভুক্ত হবে, সেখানে গরিব মানুষ ব্যয়বহুল বিভিন্ন চিকিৎসার সুবিধা পাবেন৷’’ শুধুমাত্র তাই নয়৷

রাজ্য বিজেপির এই সহ সভাপতি বলেন, ‘‘এই স্কিমের অধীনে বেসরকারি হাসপাতালে ব্যয়বহুল চিকিৎসার জন্য খরচ নির্ধারিত করে দেবে কেন্দ্রীয় সরকার৷ বিমার ব্যবস্থাও কেন্দ্রীয় সরকার করে দেবে৷’’ তবে, এই স্কিমের বিষয়ে আশঙ্কাও রয়েছে গেরুয়া শিবিরের এই নেতার৷ কেন? ডাক্তার সুভাষ সরকার বলেন, ‘‘রাষ্ট্রীয় স্বাস্থ্য বিমা যোজনায় দেখেছি, আটটি ট্রাকের মালিক এমন ব্যক্তিও সুযোগ নিচ্ছেন৷ যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো অনুযায়ী এই স্কিমের বাস্তবায়ন ঘটাবে রাজ্য সরকার৷ ব্যয়বহুল চিকিৎসার সুযোগ যাতে এ রাজ্যের প্রকৃত গরিব, অসহায় মানুষ পেতে পারেন, এবং, এর জন্য রাজ্য সরকারের তরফে যাতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়, তার জন্য আমরা অনুরোধ করছি৷’’ একই সঙ্গে তিনি অবশ্য বলেন, ‘‘সঠিক রাজ্য সরকারই এই ন্যাশনাল হেলথ প্রোটেকশন স্কিমের সঠিক বাস্তবায়ন ঘটাতে পারবে৷’’

----
--