গর্ভপাত নাৎসি জমানার অপরাধের সমান: পোপ ফ্রান্সিস

ভ্যাটিকান সিটি: গর্ভপাতের বিরুদ্ধে সরব হলেন ভ্যাটিকানের আর্জেন্টাইন পোপ ফ্রান্সিস। গর্ভপাতকে ‘ভয়ঙ্কর’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি৷ তাঁর মতে এটি সংস্কৃতিবিরোধী বলে উল্লেখ করেছেন তিনি৷ আলজাজিরায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এমনই মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে৷

বার্থ ডিফেক্টের আঁচ পেয়ে গর্ভপাত করানোকে নাত্‍‌সিদের জন্ম নিয়ন্ত্রণের সঙ্গে তুলনা করলেন পোপ ফ্রান্সিস। তাঁর মতে, সন্তানের জন্মগত কোনও শারীরিক দুর্বলতা থাকতেই পারে, এই ভয়ে যাঁরা গর্ভপাত করান, তাঁরা নাত্‍‌সি জমানার জন্ম নিয়ন্ত্রণের মতোই কুকীর্তি করেন।

কূটনীতিকদের উদ্দেশ্যে দেওয়া এক বক্তব্যে সোমবার ভ্যাটিকানে তিনি একথা বলেন৷ যদিও রোমান ক্যাথলিক চার্চের সংরক্ষণশীল প্রতিনিধিরা তাঁকে গর্ভপাতের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক কোনো মন্তব্য না করতে অনুরোধ করেছিলেন।

- Advertisement -

তবে সে নিষেধাজ্ঞা মানেন নি পোপ৷ তিনি বলেন, দুর্ভাগ্যবশত, শুধু খাবার ও প্রয়োজনীয় দ্রব্যের চাহিদা পূরণের জন্যই সন্তানকে পৃথিবীর আলো দেখানো হচ্ছে না৷ এর কড়া বিরোধিতা করেন তিন৷ এর আগেও পোপ ষোড়শ বেনেডিক্ট ও দ্বিতীয় জন পল গর্ভপাতের বিরুদ্ধে একই ধরনের অবস্থান নিয়েছিলেন।

তিনি সমালোচনা করে বলেন গর্ভাবস্থাতেই বিশেষ পরীক্ষার মাধ্যমে শিশুর জন্মত্রুটি শনাক্ত করা হচ্ছে৷ তারপরেই গর্ভপাতের মধ্য দিয়ে ত্রুটিযুক্ত শিশুর জন্ম ঠেকানো হচ্ছে৷

কনফেডারেশন অব ইতালিয়ান ফ্যামিলি অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের উদ্দেশে দেওয়া বক্তব্যে গর্ভপাতের সঙ্গে নাৎসিদের অপরাধের তুলনা করেন পোপ ফ্রান্সিস। তার মতে, দুর্বলদের শেষ করে দেওয়ার মধ্যে দিয়ে নাৎসিরা যে জাতিগত শুদ্ধি অভিযান চালিয়েছিল, এটি তারই সমতুল্য।

পোপ বলেন, ‘শিশুরা যেভাবে পৃথিবীতে আসে, ঈশ্বর যেভাবে তাদের পাঠান, ঈশ্বর যেভাবে তাদেরকে অনুমোদন করেন, তাদেরকে সেভাবেই আমাদের গ্রহণ করা উচিত; এমনকি তারা যদি অসুস্থ হয়, তখনও।

তিরিশের দশকে, নাৎসি শাসনকালে প্রজনন কর্মসূচির আওতায় ইহুদি এবং অন্যান্য সম্প্রদায় ও জাতিগোষ্ঠীর কয়েক লাখ মানুষের প্রজনন সক্ষমতা নষ্ট করে দেওয়া হয়েছিল, জোর করে। পরবর্তী প্রজন্মে শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুর জন্ম রুখতে লক্ষ লক্ষ মানুষকে মেরে ফেলা হয়েছিল৷ সেই সময়ের সঙ্গে গর্ভপাতকে তুলনা করেন পোপ ফ্রান্সিস৷

Advertisement ---
---
-----