পরেশের দলত্যাগে দিশাহারা সিংহবাহিনী

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: রক্তক্ষরণ বন্ধের কোনও লক্ষণই নেই৷ দল ত্যাগের জেরে যে গুটি কয়েক জায়গায় টিমটিম করে বাম শরিক ফরওয়ার্ড ব্লকের সলতে জ্বলছিল সেখানেই প্রদীপ নেভার অপেক্ষা মাত্র৷ শুক্রবারই ফরওয়ার্ড ব্লক ছেড়ে রাজ্যের শাসক দলে যোগ দিয়েছেন পরেশ অধিকারী৷ ফলে জেলার রাজনীতিতে সাংগঠনিকভাবে কিছুটা বেকায়দায় পড়ল এই বাম শরিক৷ মেনে নিলেন ফরওয়ার্ড ব্লকের রাজ্য সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায়৷ তবে দল যে পরেশবাবুর সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করল তাও এদিন কোচবিহারে জানিয়ে দেন তিনি৷

আরও পড়ুন: লাঞ্চের আগেই প্যাভিলিয়নে ফিরল ‘টপ থ্রি’

বাম আমলে শেষ পাঁছ বছর খাদ্যমন্ত্রী ছিলেন পরেশ অধিকারী৷ পরে কোচবিহার জেলায় দলের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পান তিনি৷ জেলার রাজনীতিতে ফরওয়ার্ড ব্লকের শক্তিশালী সংগঠকও ছিলেন তিনি৷ কিন্তু বিগত কয়েক মাস ধরে পরেশ অঘিকারীর সঙ্গে দলীয় নেতৃত্বের সম্পর্ক ভালো ছিল না৷ ফলে দলের সঙ্গে দূরত্হ বাড়ছিল পোড় খাওয়া এই বাম নেতার৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: ছাদে হেলিকপ্টার নামিয়ে ২৬ কেরলবাসীকে বাঁচালেন এই শৌর্যচক্র বিজেতা

এই সুযোগকেই কাজে লাগায় তৃণমূল৷ কয়েক দিন আগেই জেলা প্রশাসন ‘চ্যাংরাবান্ধা উন্নন পর্ষদে’র চেয়ারম্যান করে প্রাক্তণ খাদ্যমন্ত্রী পরেশ অধিকারীকে৷ তারপর শুক্রবার কলকাতায় জোড়াফুলের পতাকা হাতে তুলে নেন পরেশবাবু্৷ তাঁর দাবি ,‘‘দেশ জুড়ে বিভাজনের রাজনীতি চলছে, এনআরসি মত জনবিরোধী ইস্যুতে বামেদের কোনও আন্দোলন নেই৷ ফলে মানুষের পাশে দাঁড়াতেই তৃণমূলে যোগদান৷’’ তবে এই অভিযোগ উড়িয়ে ফরওয়ার্ড ব্লকের রাজ্য সম্পাদকের দাবি, ‘‘লোভ ও লালসার শিকার হয়েই শাসক শিবিরে নাম লিখিয়েছেন পরেশবাবু৷’’

আরও পড়ুন: আমনা ম্যাজিকে লিগ শীর্ষে ইস্টবেঙ্গল

কোচবিহার জেলা সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লক দলীয় দফতরে এদিন জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে সাংগঠনিক আলোচনা করেন নরেনবাবু৷ সেখানেই ঠিক হয় ১২ই নভেম্বর পর্যন্ত জেলা ফরওয়ার্ড ব্লকের সম্পাদকের দায়িত্ব সামলাবেন জেলা সভাপতি দীপক সরকার৷ এই প্রসঙ্গেই শাসক শিবিরের টিপন্নি, লোক না পেয়েই এখন ‘সম্পাদক’ পদটি ঝুলিয়ে রাখল ফরওয়ার্ড ব্লক৷

Advertisement
---