নিজে হাতে পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করে বিনামূল্যে বিলি করছে ছাত্ররা

তিরুঅনন্তপুরম: গত ১০০ বছরের ধ্যে এমন বন্যা আগে কখনও হয়নি। একটি একটু করে তলিয়ে যাচ্ছে। কয়েক’শ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ ঘরছাড়া। তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ক্যাম্পে। সেনাবাহিনী তৎপরতার সঙ্গে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে।

তবে কত লোক যে প্রত্যন্ত অঞ্চলের কোনায় আটকে রয়েছে, তার কোনও হদিশ নেই। অনেকে হয়ত সাহায্যের জন্য যোগাযোগও করতে পারছেন না। কোথাও ইলেকট্রসিটি নেই। সুতরাং ফোনও কাজ করছে না। আপদকালীন অবস্থায় যোগাযোগের আশাও ক্ষীণ। তাই তাদের কথা মাথায় রেখেই নিজেরা হাতে করে পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করছেন কেরলের ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের বেশ কয়েকজন ছাত্র। ওই পাওয়ার ব্যাংক বিনামূল্যে বিলিও করছেন তাঁরা।

তিরুঅনন্তপুরমের সরকারি ইঞ্জিনিয়ারংই কলেজের ছাত্ররা এই পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করছে।

- Advertisement -

ওই কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র আদিত্য কুমার জানিয়েছেন, আটটি AA ব্যাটারিকে দুটি কার্টরিজের সঙ্গে আটকে ওই পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করা হচ্ছে। ওই ছাত্র আরও জানান, ওই পাওয়ার ব্যাংক যে কোনও স্মার্টফোনে ১০-১৫ শতাংশ চার্জ দিতে পারে, সেই চার্জ ১ ঘণ্টা পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। তবে তিনি এও জানিয়েছেন যে এই পাওয়ার ব্যাংক কেবলমাত্র আপদকালীন অবস্থাতেই ব্যবহার করা সম্ভব। বেশি সময় ব্যবহার করলে ফোনের ক্ষতি হতে পারে। বন্য কবলিত যেসব এলাকায় মানুষ আটকে রয়েছে, সেখানে এয়ারড্রপ করে পাঠানো হচ্ছে এইসব পাওয়ার ব্যাংক।

কেরলের ওই ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্ররা Inspire নামে একটি এনজিও চালায়। তারাই এই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু এবার কার্টরিজের অভাব শুরু হয়েছে তাদের। এখনও পর্যন্ত ৩০০ পাওয়ার ব্যাংক বিলি করা হয়েছে, তবে আরও নতুন পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করা সম্ভব হবে কিনা, তা বুঝতে পারছেন না ছাত্ররা।

Advertisement ---
---
-----