তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ছাই দূষণ নিয়ে সরব পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ছাই দূষণ নিয়ে আগামী সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করতে চলেছে পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত৷ তার আগে শুক্রবার বক্রেশ্বর তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ছাই পুকুর ঘুরে দেখেন৷

ছাই পুকুর ঘুরে তিনি বলেন, ‘‘যা দেখলাম তা চরম বায়ু দূষণের উৎস৷ আগামিদিনে জীব বৈচিত্রে এর প্রভাব পড়বে৷ ছাই ওড়া বন্ধের জন্য বক্রেশ্বর নদীর জল দেওয়া হচ্ছে৷ যা চরম অন্যায়৷ মিষ্টির জল দিয়ে ছাই ভিজিয়ে রাখার জেরে জলও দূষিত হচ্ছে৷’’

আরও পড়ুন: কামতাপুরী ভাষার সরকারি স্বীকৃতি দেওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ

- Advertisement -

উল্লেখ্য, বক্রেশ্বর তাপবিদ্যুত কেন্দ্রের ছাই পুকুর থেকে ছাই উড়ে এলাকার চার পাঁচটি গ্রামে দূষণ ছড়াচ্ছে৷ ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কে ছাই এর করণে মানুষের চলা দায় হয়ে উঠছে৷ প্রতিবাদে কয়েকদিন আগে জাতীয় সড়ক দীর্ঘক্ষণ অবরোধ করে গ্রামবাসীরা৷

তবে বক্রেশ্বরে সুভাষবাবু যখন ছাই পুকুর দেখছিলেন, তখন বক্রেশ্বর তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে এসে তাঁর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন৷ সুভাষ দত্ত জানান, শুধু বক্রেশ্বর নয় সারা দেশে যত তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র আছে সব জায়গাতেই একই পরিস্থিতি৷ তিনি সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে সব কেন্দ্রেই পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে চান। তিনি দাবি করেন, তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলিতে কয়লার মান খারাপ। তাই ছাই বেশি হচ্ছে।

আরও পড়ুন: চিকিৎসকের বাড়িতে চামচ ও গয়না চুরিতে ধৃত দুই

আধুনিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ছাই পুকুর থাকবে না। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৫০০ মিটারের মধ্যে সমস্ত ইটের ভাটায় ছাই ব্যবহার বাধ্যতামূলক করতে হবে৷ এমনকী বাড়িতে সিমেন্টের প্লাস্টারের সময় বালির পরিবর্তে ছাই ব্যবহার করার পরামর্শ দেন৷ এই দাবিতে তিনি সিউড়ি এসে অতিরিক্ত জেলাশাসক উমাশঙ্কর এসের সঙ্গে দেখা করেন৷

Advertisement
----
-----