বার্লিন: বার্লিনে পৌঁছলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মর্কেলের সঙ্গে নৈশভোজ করার কথা তাঁর৷ জার্মানির চ্যান্সেলর হিসেবে তার চতুর্থ মেয়াদ শুরু করার পর থেকে এই প্রথম দুজনের মধ্যে দেখা হতে চলেছে৷ ভারত এবং জার্মানি, দুই দেশের অর্থনৈতিক সহযোগিতার বিষয়টিই তাদের আলোচনায় প্রাধান্য পাবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

পড়ুন: সন্ত্রাসের প্রশ্নে পাকিস্তানকে সহযোগিতা করার ডাক চিনের

Advertisement

তবে স্বল্প সময়ের এই সফর শেষে শনিবারই দেশে ফিরছেন মোদী৷ গত ১৭-২০ এপ্রিল Commonwealth Heads of Government Meeting-এ উপস্থিত থাকতে এবং দ্বিপাক্ষিক চুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে যান৷

লন্ডনের সেন্ট্রাল হল ওয়েস্টমিন্সটারের মঞ্চে ফের একবার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রসঙ্গ টেনে আনলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ভারত কি বাত, সবকে সাথ অনুষ্ঠানে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, কেউ সন্ত্রাসবাদের কারখানা খুলে পিছন থেকে আঘাত হানার চেষ্টা করলে তাকে তার ভাষাতেই জবাব দিতে তিনি জানেন৷

বুধবার লন্ডনে, সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সময় মোদীর চিন্তাভাবনা সম্পর্কে এক দর্শক জানতে আগ্রহী হলে মোদী প্রত্যুত্তরে জানান, ভারত তার হাজার বছরের ইতিহাসে কখনও অন্যের মাটি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেনি৷ প্রথম এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ভারত কোনোরকম আগ্রাসী মনোভাবের সঙ্গে যুক্ত বনা থাকলেও তার দেড় লক্ষ সেনা আত্মবলিদান দেয়৷ আজো রাষ্ট্রসঙ্ঘের পিসকিপিং ফোর্সে সবথেকে বেশি যোগদানকারী দেশগুলির মধ্যে ভারতের নাম উঠে আসে৷

পড়ুন: ‘মিথ্যা বলছেন মোদী’! সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ফের অস্বীকার পাকিস্তানের

উরি হামলার প্রসঙ্গ তুলে মোদী জানান, ভারতীয় জোয়ানরা রাতে তাঁবুতে শুয়েছিলেন, কিছু কাপুরুষ এসে তাদের মেরে ফেললে কি বারত চুপ করে বসে থাকবে? এরই উত্তর হল সার্জিক্যাল স্ট্রাইক৷ বারতীয় সেনা, জওয়ানরা তাঁর গর্ব৷

তবে তিনি এও জানান, সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর দেশবাসীকে এই বিষয়ে জানানোর আগে পাকিস্তানকে তা বলা হয়৷ তবে, প্রধানমন্ত্রীর মুখে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রসঙ্গে উঠে আসার পরই, মোদীর এই বক্তব্য মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করল পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র মহম্মদ ফইজল।

----
--