স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: সকাল থেকে বিকেল গড়িয়ে গেলেও পোস্ট অফিসের কুরিয়ার পরিষেবা ব্যহত৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভে ফেটে পড়েন দূর-দূরান্ত থেকে আসা পোস্ট অফিসের গ্রাহকরা। সোমবার জলপাইগুড়ি প্রধান ডাকঘরে ঘটনাটি ঘটে।

সপ্তাহের প্রথম দিনই বেহাল পোস্ট অফিস পরিষেবা৷ এদিন সকাল ন’টা থেকে দুপুর তিনটে পর্যন্ত লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও গ্রাহকরা কুরিয়ার করতে না পেরে ফিরে যান৷ অনেকে ফিরে গেলেও আবার অনেকে লাইনের দাঁড়িয়ে থাকলেন।

Advertisement

আরও পড়ুন: মহিলার সম্ভ্রম রক্ষা করতে গিয়েই কি খুন, যুবকের দেহ ঘিরে রহস্য

কখনও বলা হল লিঙ্ক ফেল, আবার কখনও শুনতে হল প্রিন্টার খারাপ-এইভাবেই চলল সারাটা দিন। নাজেহাল গ্রাহকরা বাড়ি ফিরলেন কাজ মাথায় নিয়েই৷

হলদিবাড়ি, মেখলিগঞ্জ, ময়নাগুড়ি-সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর গ্রাহক এদিন পোষ্ট অফিসে কুরিয়ার করতে আসেন। জেলার অন্যান্য পোস্ট অফিসগুলিতে এতদিন কুরিয়ার করার সুবিধে ছিল। কিন্তু এখন ছোট পোষ্টঅফিস বা গ্রামীণ ডাক সেবাকেন্দ্র গুলিতে কুরিয়ারের সুবিধে তুলে দেওয়ায় নতুন করে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। গ্রাহকদের অভিযোগ, গত কয়েকমাসে ডাক পরিষেবা তলানিতে ঠেকেছে।

আরও পড়ুন: ফেসবুক সর্ম্পকে নয়টি অজানা তথ্য জানুন

গ্রামীণ ডাকঘরগুলির পর এবার প্রধান ডাকঘরেও একই অবস্থা। ডাক পরিষেবাকে উন্নত করার নামে গ্রাহকদের হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। কুরিয়ার পরিষেবা বেহাল হয়ে রয়েছে এই খবর পেয়ে সরেজমিনে দেখতে ছুটে যান প্রধান ডাকঘরের পোস্টমাষ্টার আমিরুল ইসলাম মমিন। এবং কর্মীদের সমস্যা দ্রুত সমাধান করার নিদের্শ দেন।

পোস্টঅফিসের গ্রাহকদের অভিযোগ, ‘‘আমরা দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে রয়েছি। কেউ সকালে এসেছে কেউ বা তিন চার ঘণ্টার রাস্তা পার করে এসেছে ডাকঘরে৷ কিন্তু পরিষেবা একেবারে তলানিতে ঠেকে রয়েছে৷ একজন কর্মী, তার কাজের গতি কচ্ছপের থেকেও ধীর৷ মাঝেমধ্যেই বলছেন লিঙ্ক নেই বা প্রিন্টার খারাপ৷ আমরা চাই সমস্যার সমাধান হোক৷’’

আরও পড়ুন: ২১ জুলাইয়ের প্রস্তুতি সভাতেও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কাঁটা

এদিকে প্রধান ডাকঘরের পোস্টমাস্টার আমিরুল ইসলাম মমিন বলেন, ‘‘আমাদের কর্মী কম রয়েছে। এই অবস্থায় আমরা পরিষেবা যতটা পারি দিচ্ছি৷ আজকে সমস্যা হয়েছে সেই বিষয়টিও দেখছি।’’

----
--