বালুরঘাট: ফের ত্রাণের দাবিতে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতে বিক্ষোভ জলঘর পঞ্চায়েত অফিসে। ত্রাণের দাবিতে বিক্ষোভের খবর ছড়িয়ে পড়তেই তড়িঘড়ি ড্যামেজ কন্ট্রোলে মাঠে নামেন এলাকার সাংসদ অর্পিতা ঘোষ, জেলাশাসক শারদ কুমার দ্বিবেদী ও তৃণমূল সভাপতি বিপ্লব মিত্র স্বয়ং৷

শুক্রবার ব্লক প্রশাসন জলঘর এলাকার বেদিয়া পাড়ায় খাওয়ার পৌঁছানর ব্যাবস্থা করলেও আশেপাশের গ্রামের দুর্গতরা তা না পাওয়ায় নতুন করে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে৷ ত্রাণ না পেয়ে ফের পঞ্চায়েত অফিসে গিয়ে প্রধানকে ঘেরাও করে রাখেন এলাকার মানুষ। খবর পেয়ে বালুরঘাটের ভারপ্রাপ্ত বিডিও পঙ্কজ তামাং ও বালুরঘাট থানার পুলিশ পঞ্চায়েত অফিসে পৌঁছেছেন।

Advertisement

গত সপ্তাহেই ত্রাণ না পেয়ে উত্তরে বাড়ছে ক্ষোভ৷ জনতার রোষের মুখে গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য। সঙ্গে গণপিটুনি৷ অভিযুক্ত গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যকে পিটিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন বিক্ষুব্ধ জনতা৷ অভিযোগ, গত পাঁচদিন ধরে ত্রাণের ব্যবস্থা ও উদ্ধারকাজে সাহায্য করেননি তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য নিখিল সরেন। এদিন এই নিয়ে বালুরঘাট থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান চকভৃগুর চকচন্দন এলাকার বাসিন্দারা। এরপর নিখিল সরেনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্যকে গণপিটুনি দেয় ক্ষুব্ধ জনতার৷ চকভৃগু পঞ্চায়েতের চকচন্দন গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ, গত কয়েক দিন ধরে বন্যায় জলবন্দি অবস্থায় থাকলেও ত্রাণের কোন ব্যবস্থায় করেনি স্থানীয় পঞ্চায়েত৷ জলের স্রোতে প্রচুর মাটির বাড়ি ভেঙে গিয়েছেও পঞ্চায়েতের সদস্যরা একবারও খোঁজ নিতে যাননি বলে অভিযোগ। কয়েক দিন ধরে এলাকায় কোনও ত্রাণ না আসায় দুর্গতদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আজ সকালে তারই বহিপ্রকাশ ঘটল বালুরঘাট চকভৃগু এলাকায়।

বন্যার ত্রাণের দুর্নীতির অভিযোগ তুলে গত বুধবার বালুরঘাট ব্লকের বোয়ালদার গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূলের প্রধানকে ঘিরে বিক্ষোভ ও ডেপুটেশন দেয় বিজেপির বালুরঘাট মন্ডল কমিটি। রং দেখে নয় বন্যা কবলিত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর আর্জি পঞ্চায়েত প্রধানকে জানানো হয় বিজেপির পক্ষ থেকে। ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকার আশ্বাস পঞ্চায়েত প্রধানের।

দক্ষিণ দিনাজপুরের ভয়াবহ বন্যার ফলে ক্ষতি হয়েছে কয়েকশো কোটি টাকার। জেলার গঙ্গারামপুর, কুমারগঞ্জ, বংশীধারীসহ বালুরঘাটে ভয়াবহ রূপ নেয় বন্যা। ঘর বাড়ি থেকে ফসল সব নষ্ট হয়ে গিয়েছে। বন্যার জল নেমে যাওয়ার পর খোলা আকাশের নীচে আশ্রয় নিয়েছে মানুষজন। এদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাঠানো ত্রাণ ক্ষতিগ্রস্তদের বদলে অন্যরা পাচ্ছেন বলে অভিযোগ। ফলে বন্যায় সব হারানোরা অর্দ্ধাহার ও অনাহারে দিন যাপন করছে৷ এদিকে ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিকা তৈরি হলেও তাদের দেওয়া হচ্ছে না কোন রকম সাহায্য৷ এর প্রতিবাদে এদিন বালুরঘাট ব্লকের বোয়ালদার গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপির বালুরঘাট ব্লক মন্ডল কমিটি। বন্যা দুর্গতদের সাহায্যের দাবিতে পরে পঞ্চায়েত প্রধান পিন্টু বসাককে ডেপুটেশন দেন৷

এবিষয়ে বিজেপির বালুরঘাট ব্লক মন্ডল কমিটির সভাপতি সচিন মণ্ডল জানান, রং দেখে বন্যা দুর্গতদের সাহায্য করা হচ্ছে। মাত্র ৫০০ গ্রাম চাল দেওয়া হচ্ছে যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। পাশাপাশি যারা তৃণমূল করেন তাদের সব রকম সাহায্য দেওয়া হয়েছে৷ সবার মধ্যে সঠিক ভাবে ত্রাণ বিতরণের দাবিতে এদিন তারা পঞ্চায়েত প্রধানকে ডেপুটেশন দেন৷

----
--