অ্যাডিলেড: যার শেষ ভালো তার সব ভালো৷ গোটা দিন ভাল খেলে এসেও শেষটা সত্যিই সুখকর করতে পারলেন না চেতেশ্বর পূজারা৷

লড়াকু শতরান, ইনিংসের ভিত গড়ে দেওয়া, একার কাঁধে দলকে টেনে নিয়ে যাওয়া৷ মিডল অর্ডারের ব্যাটিং স্তম্ভের থেকে যা যা প্রত্যাশা ছিল সবটাই করলেন৷ ব্যাটিং বিপর্যয় কাটিয়ে পূজির দুরন্ত শতরানে ভর করে দিনের শেষে আড়াশো রানের গণ্ডি ছুঁয়েছে ভারত৷ কিন্তু ঐ, দিনের শেষের একটা ভুলই হিরো থেকে ভিলেন বানিয়ে দিল পূজিকে৷

আরও পড়ুন- সচিনদের বিকল্প হতে পারেন কপিলরা

দিনের একেবারে শেষ মুহূর্তে ৮৮ তম ওভারের পঞ্চম বলে এক রান নেওয়ার তাড়াহুড়ো করেন পূজারা৷ লক্ষ্য অবশ্যই শামিকে নট স্ট্রাইকার রাখা৷ অর্থ্যাৎ চাপটা নিজের কাঁধে রেখেই উইকেট বাঁচিয়ে ফিরতে চেয়েছিলেন৷ প্যাট কামিন্সের থ্রোয়ের সামনে শেষটায় হারতে হয়৷ তার আগের ওভারে স্টার্ককে একটি ছক্কা হাঁকানোর পরই মনসংযোগের অভাবটা ধরা পড়েছিল৷ ছক্কাটা নিখুঁত হলেও পরের বলেই খোঁচা খেতে খেতে বেঁচেছিলেন পূজি৷

শেষবেলায় ক্ষমাহীন এই ভুল করে রান আউট না হলে ম্যাচের দ্বিতীয় দিন অ্যাডভান্টেজ নিয়ে মাঠে নামার সুযোগ ছিল ভারতের সামনে৷ প্রথম দিন শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ভারতের ঝুলিতে ২৫০ রান৷ আর পূজারার নামের পাশে ১২৩রান৷ অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ার সুবর্ণ সুযোগ হারালেন চেতেশ্বর৷

কোনও এক ক্রিকেট বর্ষে সর্বাধিক রান আউট হওয়ার নজির ছিল প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক বিল লরির৷ ১৯৬৪ সালে টেস্টে ক্রিকেটে চার বার রান-আউট হয়েছিলেন বিল৷ চলতি ক্রিকেট বর্ষে লাল বলের ক্রিকেটে চার বার রান আউট হয়ে বিলকে ছুঁয়ে ফেললেন পূজি৷

আরও পড়ুন- গৌতমকে গম্ভীর না থাকার পরামর্শ কিং খানের

এবার আসা যাক পূজারা ব্যাটিংয়ে৷ দিনের প্রথম সেশনে কোহলি-রাহানেরা উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে আসার পর দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলেন সৌরাষ্ট্রের এই ব্যাটসম্যান৷২৪৬ বল খেলে চারটি বাউন্ডারিও ২টি ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে ১২৩ রান হাঁকান পূজারা৷ টেস্ট কেরিয়ারে এটি পূজারার ১৬তম সেঞ্চুরি৷ রোহিতের সঙ্গে ৪৫, পন্তের সঙ্গে ৪১ ও অশ্বিনের সঙ্গে ৬২ রানের পার্টনারশিপে স্কোরবোর্ড সচল রাখেন ভারতীয় মিডল অর্ডারের ব্যাটিং স্তম্ভ৷ আউট হওয়ার আগে নবম উইকেটে মহম্মদ শামির সঙ্গে পূজারার পার্টনারশিপ ৪০ রানের৷

সেই সঙ্গে এদিন মাইলস্টোনে দ্রাবিড়কে ছুঁলেন পূজারা৷ টেস্টে ১০৮ ইনিংসে পাঁচ হাজার রানের গণ্ডি ছুঁয়েছিলেন দ্য ওয়াল৷ সৌরাষ্ট্রের ব্যাটসম্যান পাঁচ হাজার রানের মাইলস্টোন ছুঁতে সমসংখ্যাক ইনিংস নিয়েছেন৷

অন্যদিকে পূজারার শতরান ও রোহিতের ৩৭ছাড়া কেউই বলার মতো রান পাননি৷ দিনের শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ভারতের ঝুলিতে ২৫০ রান৷ ডনের দেশে টেস্ট সফরের শুরুতে এদিন ৩ রানে আউট কোহলি৷ বিরাট, রাহানেদের উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে আসার প্রবণতা দেখে মনে হচ্ছে ‘ঘরে বাঘ, বাইরে বিড়াল’ থেকে এখনও বেড়িয়ে আসতে পারেনি ভারতীয় ব্যাটিং৷

--
----
--