পিএনবি’র লক্ষ্মীলাভ শুরু হয়েছিল পাক শহর লাহোরে

হিরে কেনার নামে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের বিপুল জালিয়াতি ঘিরে চারিদিকে হই হই কাণ্ড৷ অর্থনৈতিক মহল থেকে রাজনীতির উঠোনে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য৷ ১২৩ বছর আগেও একবার ব্যাংকটি এসেছিল চর্চার কেন্দ্রে৷ ইতিহাস ঘাঁটলে মিলছে, প্রথম ভারতীয় পূর্ণাঙ্গ ব্যাংকটির জন্ম শহর কিন্তু বর্তমান পাকিস্তানেই৷

প্রসেনজিৎ চৌধুরী: দেশের অন্যতম আর্থিক দুর্নীতি মামলায় পিএনবি’র মতো রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক জড়িয়েছে৷ হিরে কেনার নাম করে বেআইনি উপায়ে এই ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়া টাকার পরিমাণে নড়ে গিয়েছে আসমুদ্র হিমাচল৷ সেদিনও কিন্তু নড়ে গিয়েছিল অখণ্ডিত ভারত৷ লেগেছিল উন্মাদনা, আর চর্চার কেন্দ্রে ছিল পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকটি৷

১৮৯৪ সালটি ভারতের ইতিহাসে উল্লেখযোগ্য হয়ে আছে৷ পরাধীন দেশটি সেই বছরেই অর্থনীতির ক্ষেত্রে প্রবল জাতীয়তাবোধে আচ্ছন্ন হয়েছিল৷ সেই বছরই প্রথম ভারতীয় পুঁজিতে পরিচালিত ব্যাংক হিসেবে মর্যাদা লাভ করে পিএনবি৷ এটি প্রায় অনালোচিত ইতিহাস৷

বিভিন্ন নথি থেকে পিএনবি’র অতীত কথা ঘাঁটতে গিয়ে উঠে এসেছে- লাহোর শহরেই হয়েছিল ব্যাংকটির নিবন্ধন৷ সেই অর্থে লাহোরবাসী গর্ব অনুভব করেন৷ দেশভাগ হওয়ার পরে পাকিস্তানে পড়েছে লাহোর৷

আরও পডুন: পাকিস্তানের বিমান ব্যবসার শিকড় রয়েছে কলকাতায়

১৮৯৪ সালের ১৯ মে’র দিন৷ সেদিন লাহোর শহরের বিখ্যাত আনারকলি বাজারেই হয়েছিল পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের গোড়াপত্তন৷ একশ শতাংশ দেশীয় পুঁজি ছিল ব্যাংকের মূলধন৷ সেই বছরের ২৩মে ব্যাংকের পরিচালকমণ্ডলীর প্রথম সভা হয়৷ আর লাহোরেই ১৮৯৫ সালের ১২ এপ্রিল প্রথম পূর্ণাঙ্গ ভারতীয় ব্যাংক হিসেবে ব্যবসা শুরু করে পিএনবি৷

ব্যাংকটির ইতিহাসে জড়িয়ে আছে আরও এক পাক শহর৷ ১৯০০ সালে রাওয়ালপিন্ডিতে পিএনবি প্রথম তার শাখা কার্যালয় তৈরি করে৷ ধীরগতিতে এগিয়ে গেলেও ক্রমশ উপমহাদেশের অর্থনীতিতে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ নাম হয়ে উঠে আসে৷

পড়ুন: ফতোয়ার শুধুই কলম-খাতা,হীরামাণ্ডির কোঠায় এখনও নূরজাহান-লতা

দেশীয় পুঁজিতে তৈরি ব্যাংকটি ঘিরে আগ্রহ দেখা দিয়েছিল লাহোরবাসীর মধ্যে৷ উপমহাদেশের অন্যতম জনবহুল ও বাণিজ্যিক শহর হিসেবে লাহোরের সুপরিচিতি বহুকাল থেকেই৷ পৌরাণিক সময় থেকে মোগল আমলে ছড়িয়ে এই শহরের সুনাম৷ পরে ব্রিটিশ জমানাতেও শহরটি আড়ে বহরে আরও বেড়ে ওঠে৷ একইসঙ্গে স্বাধীনতা আন্দোলনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলনের পীঠস্থানে পরিণত হয় লাহোর৷

পিএনবি ইতিহাস বলছে, ব্যাংকটির প্রথম পরিচালক মণ্ডলীর প্রত্যেকেই ‘স্বদেশী’ আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত৷ এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন লালা লাজপত রায়৷ সাইমন কমিশনের বিরুদ্ধে রাজপথে অহিংস আন্দোলনের নেতা ছিলেন তিনি৷ লাহোরেই তাঁকে পুলিশ অমানবিক লাঠিপেটা করে৷ সেই আঘাতে ১৯২৮ সালের ১৭ নভেম্বর মৃত্যু হয় লালাজীর৷ তারই বদলা হিসেবে লাহোরের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার স্যান্ডার্সকে গুলি করে মেরেছিলেন নিয়েছিলেন হিন্দুস্তান সোশ্যালিস্ট রিবালিকান অ্যাসোসিয়েশনের বিপ্লবীরা৷

বিশেষ নজর: ‘লাল সেলাম ভগৎ সিং’ বলছে পাক প্রজন্ম

দেশভাগ হওয়ার ব্যাংকটির পরিচালকমণ্ডলী ভারতে চলে আসার মনস্থির করেন৷ সেই মোতাবেক লাহোর হাইকোর্টে আবেদন করা হয়৷ ১৯৪৭ সালের ২০জুন অনুমতি এসে যায়৷ তারপরেই লাহোর ছেড়ে দিল্লিতে ব্যাংকটির সদর কার্যালয় আনা হয়৷ পরে স্বাধীন ভারতে ব্যাংক জাতীয়করণের মাধ্যমে পিএনবি পেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের তকমা৷

দেশবিভাগ অনেককিছু ছিনিয়ে নিয়েছিল৷ নতুন করে শুরু হয়েছিল ভাঙা-গড়ার খেলা৷ লাহোর থেকে যাত্রা শুরু করা পিএনবি-তেও লেগেছে তার ছোঁয়া৷ সম্পূর্ণ দেশীয় পুঁজিতে গঠিত ব্যাংকটি ইতিহাস রোমাঞ্চকর বললেও কম৷ এই কাহিনির জন্ম পাকিস্তানের শহর লাহোরে৷

----
-----