লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে নাগরিক পঞ্জির প্রকৃত উদ্দেশ্য: কংগ্রেস নেতা

ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: যে উদ্দেশ্য নিয়ে নাগরিক পঞ্জির তালিকা প্রস্তুত করা শুরু হয়েছিল না নষ্ট হয়েছে। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটিই লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে গিয়েছে। এমনই দাবি করলেন অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ।

আরও পড়ুন- বোর্ড গঠন ঘিরে উত্তপ্ত মালদহের মানিকচক, নিহত দুই

চলতি বছরের শুরু দিন থেকে সাত মাস সময়ের মধ্যে অসমের নাগরিক পঞ্জির দু’টি তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। দু’টি তালিকা খসড়া হলেও তা নিয়ে বিতর্ক কিছু কম হয়নি। দ্বিতীয় তথা চূড়ান্ত খসড়া তালিকা থেকে বাদ গিয়েছে ৪০ লক্ষ আবেদনকারীর নাম। যা নিয়ে শুরু হয়েছে চাপানউতোর।

এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন ওই রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ। তিনি বলেছেন, “৪০ লক্ষ মানুষের নাম বাদ গিয়েছে। যাদের মধ্যে অধিকাংশই ভারতীয়। যে উদ্দেশ্য নিয়ে আমরা নাগরিক পঞ্জির তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছিলাম তা ব্যর্থ হয়েছে। লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে নাগরিক পঞ্জির উদ্দেশ্য।”

আরও পড়ুন- ‘রাখী বন্ধন উৎসব করছে সিপিএম, এটাই বিজেপির সাফল্য’

একই সঙ্গে কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ আরও জানিয়েছেন যে ২০১০ সালে পাইলট প্রোজেক্ট হিসেবে নাগরিক পঞ্জির কাজ শুরু করা হয়। অনেক জটিলতা থাকায় তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর এই নাগরিক পঞ্জির তালিকা তৈরির জন্য গঠন করা হয় ক্যাবিনেট কমিটি। সেই কমিটি সকল রাজনৈতিক দলের সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত রেজিস্টার জেনারেলের কাছে পাঠায়।

অসমের নাগরিক পঞ্জির তালিকে ঘিরে আলোচনা শুরু হয়েছে সমগ্র দেশ জুড়ে। এই প্রতিকূলতার জন্য অসম রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুলেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা। দুই জায়গাতেই সরকার চালাচ্ছে বিজেপি। নাগরিক পঞ্জির তালিকার পিছনে পদ্ম শিবিরের রাজনৈতিক স্বার্থ রয়েছে বলেও দাবি করেছেন তিনি।

কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ অবশ্য সরাসরি বিজেপিকে আক্রমণ করে কিছু বলেননি। তবে তিনি বলেছেন, “নাগরিক পঞ্জি নিয়ে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা রেজিস্টার জেনারেলের স্পষ্ট ধারনা নেই।”

Advertisement
----
-----