লাহোর:  বিপ্লবী ভগৎ সিং সহ আরও দুই স্বাধীনতা সংগ্রামী রাজগুরু ও সুখদেবের মৃত্যুদণ্ডের জন্য ক্ষমা চান ইংল্যান্ডের রানি এলিজাবেথ৷ এই দাবি করেছিলেন পাকিস্তানি সমাজকর্মী তথা ভগৎ সিং মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা আবদুল্লা মালিক৷  সেই দাবি ঘিরে বিতর্ক জমাট হচ্ছে৷ কারণ সংগঠনটি ইসলামাবাদের ব্রিটিশ হাইকমিশনে তাদের দাবিপত্র জমা দিতে ইচ্ছুক৷  ফলে বিব্রত পাকিস্তান সরকার৷ এদিকে অবস্থানে অনড় ভগৎ সিং মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন
১৯৩১ সালের ২৩ মার্চ ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামী ভগৎ সিং, সুখদেব ও রাজগুরুকে ফাঁসি দিয়েছিল ব্রিটিশ সরকার৷ লাহোর সেন্ট্রাল জেলেই ফাঁসি হয়েছিল তিন বিপ্লবীর৷ শহিদ দিবস স্মরণে প্রতিবছরের মতো এবারেও বিশেষ অনুষ্ঠান পালিত হয়েছে লাহোরে৷

পড়ুন: ‘লাল সেলাম ভগৎ সিং’ বলছে পাক প্রজন্ম

সেই অনুষ্ঠান থেকেই ইংল্যান্ডের বর্তমান রানি এলিজাবেথকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলে বিতর্ক শুরু করে দিয়েছেন আবদুল্লা মালিক৷ বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে৷ আবদুল্লা মালিক জানিয়েছেন, ভগৎ সিং সমাজতন্ত্রের স্বপ্ন দেখতেন৷ সেই লক্ষ্যে লড়াই চালিয়েছিলেন৷ পরাধীন ভারতে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে সরাসরি সশস্ত্র পথে বিপ্লবে অংশ নিয়েছিলেন ভগৎ সিং৷ লাহোরে আন্দোলনকারী লালা লাজপত রায়ের উপর চড়াও হয়েছিল ব্রিটিশ পুলিশ৷ লাঠির আঘাতে মৃত্যু হয় লালা লাজপত রায়ের৷ প্রত্যাঘাতে মরিয়া হয়ে ওঠেন বিপ্লবী চন্দ্রশেখর আজাদের নেতৃত্বে হিন্দুস্তান সোশালিস্ট রিপাবলিকান অ্যাসোশিয়েসন৷ গুলি করা হয় লাহোরের অ্যাসিস্টেন্স পুলিশ কমিশনার জন স্যান্ডার্সকে৷ মৃত্যু হয় তার৷

ঘটনায় প্রত্যক্ষ যোগ ছিল ভগৎ সিং, সুখদেব ও রাজগুরুর৷ পরে দিল্লির অ্যাসেম্বলি হলে বোমা নিক্ষেপ করেন ভগৎ সিং ও বটুকেশ্বর দত্ত৷ ধরা পড়ার পর বিচার শুরু হয় বিপ্লবীদের৷ শেষপর্যন্ত ফাঁসি হয় ভগৎ সিং, সুখদেব ও রাজগুরুর৷   অবিভক্ত ভারতের বাঙ্গা গ্রাম(বর্তমানে পাকিস্তানে পড়ে) জন্ম হয়েছিল বিপ্লবী ভগৎ সিংয়ের৷

--
----
--