ঋণ দেওয়াতে সতর্ক না হলে অনুৎপাদক সম্পদ বাড়বে: রাজন

নয়াদিল্লি: ঋণ দেওয়ার লক্ষ্যপূরণ এবং ঋণ মুকুব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সতর্ক করলেন রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন৷ ব্যাংকের অনুৎপাদক সম্পদের উপর সংসদীয় কমিটির নোটে প্রাক্তন গভর্নর জানান, শুধুমাত্র পুরনো সমস্যা কথা না ভেবে সরকারের নজর দেওয়া দরকার ভবিষ্যত সমস্যার উৎসের দিকে৷

রঘুরাম রাজন সরকারের উদ্দেশ্য জানিয়েছেন, ঋণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় শর্ত না মেনে এগিয়ে চলা উচিত নয় কারণ তাতে ভবিষ্যতে অনুৎপাদক সম্পদের জন্ম দেবে৷ এক্ষেত্রে মুদ্রা ঋণ এবং কিষান ক্রেডিট কার্ড উভয়েই খুবই জনপ্রিয় হলেও ঝুঁকির কথা চিন্তা করে সেগুলিকে পরীক্ষা করে নেওয়া হয় ৷

এছাড়া সিডবি পরিচালিত ক্ষুদ্র ছোট মাঝারি শিল্পের জন্য ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম-এর ফলে যেভাবে সম্ভাব্য দায় বাড়ছে এবং তা অবিলম্বে খতিয়ে দেখা দরকার বলে তিনি জানান৷

- Advertisement -

সম্প্রতি স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হংসরাজ আহির সুপারিশ করেছিলেন, যেসব ব্রাঞ্চ ম্যানেজার মুদ্রা ঋণের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারছেন তাদের বেতন বৃদ্ধি আটকে দেওয়া হোক৷ প্রসঙ্গত, এই মুদ্রা বা মাইক্রো ইউনিটস ডেভলপমেন্ট অ্যান্ড রিফাইন্যান্স এজেন্সি ব্যাংক চালু হয় ২০১৫ সালে ছোট উদ্যোগীদের উৎসাহ দিতে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা করতে৷ এই প্রকল্পের জন্য অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি ২০১৮ সালের বাজেটে ২ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে৷

বর্তমান রিজার্ভ ব্যাংক গভর্নর উর্জিত প্যাটেলের মতোই তাঁর পূর্বসূরী রঘুরাম রাজনও যুক্তি দেখিয়েছেন ঋণ মকুব ঋণের সংস্কৃতিকে দূষিত করছে৷ রঘুরাম রাজন ব্যাংক ব্যবস্থায় উচ্চ হারে অনুৎপাদক সম্পদকে চিহ্নিত করেছিলেন এবং ২০১৫ সালে তা পরিষ্কার করতে উদ্যোগী হয়েছিলেন তাঁর কাছ থেকেই সংসদীয় কমিটি এই বিষয়ে জানতে চেয়েছে৷ প্রাক্তন গভর্নর চিহ্নিত করেন ২০০৬-০৮ অনুৎপাদক সম্পক বেড়েছে কারণ শর্তাবলী না মেনে ঋণ দেওয়া হয়েছিল৷

Advertisement
---