হায়দরাবাদ: এক সাধারণ চা ওয়ালা থেকে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। আর তাঁর সরকারের বিরোধী দলনেতাকেই কিনা দেওয়া হল মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়া চা!

আরও পড়ুন- বাঁকুড়ায় তৃণমূল নেতার বাড়ি থেকে উদ্ধার বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক

ঘটনাটি ঘটেছে তেলেঙ্গানার রাজধানী শহর হায়দরাবাদ। চলতি মাসের নয় তারিখে কর্মীসভার উদ্দেশ্যে সামসাবাদে যাচ্ছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। যাওয়ার পথেই ঘটেছে এই বিপত্তি।

আরও পড়ুন- মিমির জন্য নোট নিচ্ছেন নুসরত, যেন উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা: নেটিজেন

হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমে একটু জিরিয়ে নিতে চেয়েছিলেন রাহুল। বমানবন্দরের লাউঞ্জে যান তিনি। সেখানে তাঁকে চা দেওয়া হয়। যে টি ব্যাগ তাঁকে দেওয়া হয়েছিল তা ছিল মেয়াদ ফুরনো। উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে ওই ঘটনার সময়ে তেলেঙ্গানা স্টেট ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি-র আধিকারিকেরা উপস্থিত ছিলেন।

 

আরও পড়ুন- কংগ্রেসের ওয়েবসাইট খুললেই দেখা যাচ্ছে হার্দিকের যৌন কেলেঙ্কারির ছবি

রাহুল গান্ধীকে যে টি ব্যাগতি দেওয়া হয়েছিল সেটির মেয়াদ ফুরিয়ে গিয়েছে ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত প্লাজা প্রিমিয়াম লাউঞ্জের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৮৩ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ছয় মাসের জেল এবং এক হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে।

আরও পড়ুন- অর্জুনকে স্বাগত জানাচ্ছেন বারাকপুরের ‘মার খাওয়া’ বিজেপি নেতারাও

যদিও ওই চা পান করেননি রাহুল গান্ধী। আরও বলা ভালো তাঁকে পান করতে দেওয়া হয়নি। রাহুল গান্ধী এবং নরেন্দ্র মোদী এই মুহূর্তে দেশের সবথেকে গুরুত্বপুর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। বিভিন্ন সময়ে তাঁদের প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তাঁদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ ব্যাবস্থা করা হয়ে থাকে। সেই কারণে যে কোনও ধরনের খাবার তাঁদের পরিবেশন করার আগে ভালোভাবে তা যাচাই করে দেওখে নেওয়া হয়।