অন্তিম সময়ে ‘রাম নাম’ করছে তৃণমূল: রাহুল

স্টাফ রিপোর্টার, চুঁচুড়া: অন্তিম সময় হয়ে এসেছে তৃণমূল কংগ্রেসের। সেই কারণেই এখন রাম নাম করছে তৃণমূল। এই ভাষাতেই রামনবমী নিয়ে রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করলেন রাজ্য বিজেপি-র প্রাক্তন সভাপতি রাহুল সিনহা।

রবিবার রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন প্রান্তে পালন করা হয়েছে রামনবমী। হিন্দুত্ববাদী সকল সংগঠনই এদিন মিছিল এবং শোভাযাত্রা করেছে শ্রীরামের নামে। একইসঙ্গে সেই তালিকায় ছিল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।

পশ্চিমবঙ্গে রামনবমীর বিশেষ চল ছিল না। গত বছর থেকে ভেঙেছে সেই ধারা। রাজ্যে চালু হয়েছে রামনবমীর মিছিল এবং শোভাযাত্রা। সৌজন্যে বঙ্গ বিজেপি।

- Advertisement -

এই বছরের রামনবমীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে হুগলী জেলার চুঁচুড়ায় হাজির ছিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। সেখানেই তৃণমূল কংগ্রেসের রামনবমী পালনকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “অন্তিম যাত্রাকালে রাম নাম করে। তৃণমূল কংগ্রেসের সেই অন্তিমকাল এসে গিয়েছে। এভাবেই রাম নাম করতে করতে অন্তিমযাত্রার দিকে এগিয়ে যাবে।” তৃণমূল যত অন্তিমযাত্রায় এগিয়ে গেলে এই রাজ্যের উন্নতি হবে বলেও দাবি করেছেন রাহুল বাবু।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ নতুন কিছু নয়। বিজেপি সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল বারবার এই অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস এবং দলনেত্রীর বিরুদ্ধে। এই অবস্থায় তৃণমূল কংগ্রেসের রামনবমী পালন ঘিরে রাহুল সিনহা বলেছেন, “এটা আমাদের বড় সাফল্যে মমতা বেগমের মুখে রাম নাম করাতে পেড়েছি।” গত বছরে পদ্ম শিবিরের রামনবমী পালন ঘিরে বিতর্ক হয়েছিল। সেই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “গত বছরে তৃণমূল যা করেছিল যেন মোঘল জামানায় রয়েছি। রামনবমী পালন করা যাবে না। এক বছরের মধ্যেই সেই রাম বিরোধীরা রাম নাম করতে শুরু করেছে। এটাই হিন্দুত্বের বড় জয়।”

হুগলী জেলা বিজেপি-র রামনবমীর শোভাযাত্রা শুরু হয় ওই দিন দুপুর ২টো নাগাদ। কাপাসডাঙা থেকে শুরু হওয়া মিছিল সমগ্র চুঁচুড়া প্রদক্ষিণ করে শরৎ সরণি মোড়ে শেষ হয়। মিছিলে অগশগ্রহণকারীদের হাতে ছিল অস্ত্র। প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করে হাতে অস্ত্র নেওয়ায় বাধা দেয় পুলিশ। পুলিশের বিরুদ্ধে অস্ত্র কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যদিও পরে বিক্ষোভের মুখে পুলিশ অস্ত্র ফেরত দিয়ে দেয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা।

মিছিলে অস্ত্র হাতে নেওয়ার বিষয়ে রাহুল সিনহা বলেন, “ধর্মীর রেওয়াজ মেনেই অস্ত্র নিয়ে মিছিল করা হয়েছে।” অস্ত্র নিয়ে কারোর উপরে আক্রমণ করার কোনও অভিপ্রায় বিজেপি কর্মীদের ছিল না বলে দাবি করেছেন রাহুল বাবু। একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “মহরমের মিছিলেও তো অস্ত্র থাকে। তখন তো কোনও প্রশ্ন তোলা হয় না!”

Advertisement ---
---
-----