আদালতেও কেন্দ্রীয় নিরাপত্তায় কৈলাশ, রাহুল

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অপরাধী যেই হোক না কেন, আদালতে হাজির হলে তার নিরাপত্তার সবরকম দায়িত্ব সামলাতে হয় রাজ্য পুলিশকেই৷ এটাই নিয়ম৷ কিন্তু নজিরবিহীনভাবে বিজেপি’র ‘অভিযুক্ত’ কেন্দ্রীয় নেতাদের নিরাপত্তা দিতে আদালতের ভিতরে ঢুকে গেল কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ যা নিয়ে রীতিমতো ক্ষুব্ধ কলকাতা পুলিশ৷

বৃহস্পতিবার বিজেপি’র লালবাজার অভিযানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা সহ একাধিক অভিযোগে ১৪১ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ যাদের বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য ধারায় মামলা রুজু হয়েছিল তাঁরা কেউই সেই রাতে জামিন নেননি৷ ফলে শুক্রবার তাঁদের আদালতে পেশ করে পুলিশ৷ ধৃতদের মধ্যে কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, রাহুল সিনহার মতো কেন্দ্রীয় নেতারা রয়েছেন যাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব সামলায় কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ তাঁরা যেখানেই যান না কেন নেতাদের গায়ে লেগে থাকাই কাজ কেন্দ্রীয় বাহিনীর৷ কিন্তু তাই বলে আদালতের ভিতরেও? প্রশ্ন তুলেছে পুলিশ৷

এদিন প্রিজন ভ্যানে করে সিটি সেশনস আদালতে হাজির করা হয় কৈলাশ-রাহুলদের৷ সেই ভ্যানেও কেন্দ্রীয় বাহিনী কৈলাশ-রাহুলের সঙ্গে ছিল৷ অন্যান্য অভিযুক্তদের যে গেট থেকে কোর্ট লকআপে নিয়ে যাওয়া হয়, সেই গেট থেকেই তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়৷ এই আদালতের কোর্ট লকআপে ঢোকার আগে একটি জাল ঘেরা অংশ রয়েছে৷ দুই নেতাই এদিন কোর্ট লকআপে ঢোকার আগে সেখানে দাড়িয়ে কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে তাঁদের অভ্যর্থনা গ্রহণ করেন৷ সেখানেও চলে যায় কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ তারপর নেতারা কোর্ট লকআপে ঢুকে গেলেও বাইরে দাড়িয়ে ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ যা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে পুলিশ৷

- Advertisement -

কলকাতা পুলিশের এক অফিসারের অভিযোগ, ‘‘প্রিজন ভ্যান থেকে বের করার পর থেকেই আসামীর সব নিরাপত্তার দায়িত্ব আমাদের৷ কোর্ট লকআপের বাইরে পর্যন্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী যেতে পারে না৷ এখানে যা হয়েছে তা নিয়মবিরুদ্ধ৷’’ এব্যাপারে ডিসি (সেন্ট্রাল) অখিলেশ চতুর্বেদী বলেন, ‘‘বিষয়টি না জেনে বলতে পারব না৷ খোঁজ নিয়ে দেখব৷’’

Advertisement ---
---
-----