বৈদুতিকরণের মাধ্যমে একাধারে দূষণ ও খরচ কমাতে চলেছে রেল

ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: এক ঢিলে দুই পাখি!রেললাইনের বৈদুতিকরণের মাধ্যমে জ্বালানির দূষণ কমানোর পাশাপাশি প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকার জ্বালানির খরচ কমাতে চলেছে রেলওয়ে মন্ত্রক। এর ফলে প্রায় ৩.৪ মিলিয়ন টনের দূষণ কমবে আগামী একবছরের মধ্যেই। অপেক্ষা শুধু রেলওয়ের বৈদুতিকরণের কাজ সম্পন্ন হওয়ার। এদিন এমনই জানালেন রেলওয়ে প্রতিমন্ত্রী মনোজ সিনহা।

ইন্সটিটিউশন অফ রেলওয়েজ ইলেকট্রিকাল ইঞ্জিনিয়রসের সহায়তায় রেলওয়ে মন্ত্রক আয়োজিত একটি আলোচনায় ‘ই-মবিলিটি ইন ইন্ডিয়ান রেলওয়েজ’ এর বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে মনোজ সিনহা জানান, বৈদুতিকরণের মাধ্যমে প্রায় ৭,৫০৪ কোটি টাকার শক্তি সঞ্চয় করা সম্ভব।

- Advertisement -

তিনি আরও বলেন,’প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য দেশকে পরিচ্ছন্ন ও প্রাকৃতিক শক্তির ওপর নির্ভরশীল করে তোলার লক্ষ্যে ভারতীয় রেলওয়ের উচিত সৌরশক্তি থেকে উৎপাদিত শক্তিকে অনেক বেশী কাজে লাগানো’।
রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান আশ্বিনী লোহানি জানিয়েছেন, রেলওয়ের বৈদুতিকিকরণ একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ, যা জ্বালানির খরচ কমাবে অনেকটাই।

আরও পড়ুন: অপরিচ্ছন্ন সুপার স্পেশালিটি, অবস্থা দেখে ক্ষুব্দ জেলাশাসক

পাশাপাশি তিনি এই ব্যবস্থাকে সমর্থন করে বলেন,যেকোনো ধরণের পরিবহণ ব্যবস্থার মধ্যেই জট তৈরি হওয়া কাম্য নয়। বৈদুতিকরনের মাধ্যমে রেলের খরচ অনেকটাই কমবে।মালবাহী ট্রেন গুলির গতি বাড়াতে হবে।পরিবহণ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য পাশাপাশি টার্মিনালগুলির উন্নতির প্রয়োজন।

রেলওয়ে মন্ত্রকের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রক,জনসংযোগ দফতর ও শিল্পকর্তা মিলিয়ে প্রায় ৩০০ জন ব্যক্তি এই আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement
---