প্রকাশিত হচ্ছে রঘুরাম রাজনের বই ‘I Do What I Do’

চেন্নাই: দ্বিতীয়বার আর রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর হওয়ার কোনও ইচ্ছা তাঁর নেই, এমনটাই জানিয়ে দিলেন তৎকালীণ ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর রঘুরাম রাজন। কারণ দায়িত্ব সামলাতে গিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে তাঁর মতবিরোধ হচ্ছিল৷ তাই রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর তাঁর মেয়াদ শেষের আগেই জানিয়েছিলেন তিনি ফের শিক্ষাক্ষেত্রেই কাজ করতে চান। এবার তিনি সেই সব দিনের অভিজ্ঞতার কথা জানাতেই কলম ধরেছেন৷ তার চোখে সেই সময়টা তুলে ধরতে ‘I Do What I Do’‌ নামে বই লিখেছেন রঘুরাম। ৫ সেপ্টেম্বর চেন্নাইতে সে বই মুক্তি পাবে। বইটিতে থাকবে ২০১৩ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত রঘুরামের কর্মজীবনের অভিজ্ঞতা।

সুদ কমানো নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে রিজার্ভ ব্যাংকের লড়াই নতুন নয়। শিল্পপতিদের লবির চাপে সরকার সব সময়ই চায় সুদের হার কমিয়ে দিতে কারণ শিল্পমহলের যুক্তি থাকে প্রতিযোগিতার বাজারে টিকে থাকতে সেটা একান্ত জরুরি৷ এদিকে দেশের অর্থব্যবস্থার নিয়ন্ত্রকের ভূমিকায় থেকে সময় সময়ে সার্বিক আর্থিক পরিস্থিতি ও মুদ্রাস্ফীতির পর্যালোচনার করে সুদ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হয় রিজার্ভ ব্যাংকে। ফলে সেই সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের সঙ্গে বহু ক্ষেত্রেই মেলে না। আর এই টানাপোড়েন যে কোন স্তরে পৌঁছতে পারে তা হাড়ে হাড়ে বুঝেছিলেন রঘুরাম রাজন। মোদি সরকারের সঙ্গে দূরত্ব এতটাই বেড়ে যায় যে শেষমেশ কাজ ছেড়ে চলে যান তিনি।

সুদ কমানো পাশাপাশি শিল্পপতিদের জীবনযাত্রা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন তৎকালীন রিজার্ভ ব্যাংকের গর্ভনর৷ একের পর এক শিল্পপতি যেভাবে ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ না করায় ব্যাংকে অনুৎপাদক সম্পদের পরিমাণ বাড়তে থাকে তা দেখে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন তিনি ৷ বিশেষত ৯০০০ কোটি টাকার ঋণ পরিশোধ না করে বিজয় মালিয়া যেভাবে দেশ ছেড়ে বিদেশে পালিয়ে ছিলেন সেটার জন্য কেন্দ্রের ভূমিকায় তিনি ছিলেন রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন৷ তাই নাম না করে বিজয় মালিয়াকে আক্রমণ করে রঘুরাম রাজনের প্রশ্ন ছিল- ব্যবসায় ব্যর্থতার জেরে যেখানে শিল্পপতিরা ব্যাংক ঋণের টাকা শোধ করতে পারেন না সেখানে তারাই কেমন করে বিলাসবহুল জীবনযাত্রা চালিয়ে যেতে পারেন৷ আশা করা হচ্ছে তার এই নতুন বইতে ব্যাখ্যা মিলবে তিনি করতে চেয়েছিলেন এবং কেন?

- Advertisement -

তবে সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর হিসেবে তিনি তৃতীয় যিনি তাঁর সেই অভিজ্ঞতার কথা লিপিবদ্ধ করেছেন৷ গত বছর ডি সুব্বারাও লিখেছিলেন ‘Who moved my interest rate?’৷ এই বইটিতে তিনি তুলে ধরেছিলেন রিজার্ভ ব্যাংক অর্থমন্ত্রকের সম্পর্কের টানাপোড়েন৷ তাছাড়া এই বছরের প্রথমদিকে ওয়াই ভি রেড্ডি তাঁর অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন ‘Advice and dissent: My life in public service’ বইটিতে৷
 

Advertisement
---