স্বাধীনতা দিবসের আগে রাজস্থানে ‘Pakistan, I Love’ লেখা বেলুন ঘিরে চাঞ্চল্য

জয়পুর: দুটো বেলুন, আর তাতে লেখা ‘Pakistan and I Love’ , রাজস্থানের শ্রীগঙ্গানগরে এই বেলুন দেখা গিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রাকশিত খবর অনুযায়ী, রাইসিগনগর পুলিশ স্টেশনের এসএইচও মজিদ খান জানান, বেলুন দুটির দেখতে পেয়ে খবর দেয় গ্রামবাসীরা৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ এবং সিআইডি৷

জানা গিয়েছে, এর আগে পাক পতাকা লাগানো একটি বেলুন পাওয়া যায় শ্রীগঙ্গানগরে পদ্মপুর পুলিশ স্টেশনের ১৯বিবি গ্রামে, যা আন্তর্জাতিক সীমান্তে কাছেই৷ পদ্মপুর পুলিশ স্টেশনের এসএইচও রামেশ্বর লাল জানান, পাকিস্তানের বাহাওয়ালপুরের ঠিকানা দেওয়া ওই বেলুনে আজাদি মুবারক লেখাটি উর্দুতে লেখা ছিল৷ ইন্টালিজেন্স অফিসার এবং পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে বলেও জানান তিনি৷

আরও পড়ুন:দিল্লি বিমানবন্দর থেকে গ্রেফতার লস্কর জঙ্গি

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ১৫ অগস্ট উপলক্ষ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে। স্বাধীনতা দিবসের আগে গোয়েন্দা বিভাগ সর্বক্ষণ নজর রাখছেন কাশ্মীরের কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী দলগুলির উপর। লস্কর- ই-তইবা, জইস-ই-মহম্মদ এবং হিজবুল মুজাহিদ্দিন জম্মু ও দিল্লিতে স্বাধীনতা দিবসের আগে নতুন কোনো হামলার ছক কষছে কিনা নজর রয়েছে সেদিকে৷

আর তার মধ্যেই, কাশ্মীরে বড়সড় সন্ত্রাসবাদী হামলার ছক বানচাল করে পুলিশ। রবিবার জম্মু থেকে একজন সন্ত্রাসবাদীকে গ্রেফতার করে তারা। পুলিশ জানিয়েছে আটটি গ্রেনেড নিয়ে ওই ব্যাক্তির দিল্লি যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। সেখানে কাউকে সেই বিস্ফোরক পদার্থ দেওয়ার কথা ছিল তার। স্বাধীনতা দিবসের আগে দেশের রাজধানীতে বড় ধরনের দুর্ঘটনা এড়ানো গেল এমনটাই মনে করছে পুলিশ।

পুলিশ ধৃত সন্ত্রাসবাদী আরফান ওয়ানিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা করছে দিল্লিতে কাকে তার ঐ বিস্ফোরক পদার্থ দেওয়ার ছিল? দিল্লি বা শহরের বাইরে আর কার কার সঙ্গে যোগ রয়েছে তার? এছাড়া কি ধরনের হামলার পরিকল্পনা ছিল তাদের তাও জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। একদিকে আরফান ওয়ানিকে গ্রেফতার করে একটি হামলার আশঙ্কা এড়াতে পারলেও স্বাধীনতা দিবসের আগে কোনও ধরণের আশঙ্কাই উড়িয়ে দিতে পারছেনা পুলিশ। আর এসবের মাঝেই রাজস্থানে এই ধরণের বেলুন যে যথেষ্ট ভাবাচ্ছে তা বলাই যায়?

Advertisement ---
---
-----