স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রামনবমীতে বিজেপির অস্ত্রমিছিলের পর আর কোনও ঝুঁকি নিল না তৃণমূল কংগ্রেস৷ রাখি বন্ধন উৎসবে গেরুয়া শিবিরকে টেক্কা দিতে সোমবার সকাল থেকে মাঠে নেমে পড়ল ঘাসফুল শিবির৷

ভারত ছাড়ার ডাক দিয়ে একুশের মঞ্চ থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে সুর বেঁধে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷দলের কর্মী-সমর্থকদের বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, বিজেপিকে দেশছাড়া করতে করতে গেলে জনসংযোগে জোর দেওয়ার এখন তাদের মূল লক্ষ্য৷ওইদিনইমুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন,রাখি পূর্নিমার দিনটি তারা সংস্কৃতি দিবস হিসেবা পালন করবে৷

Advertisement

আরও পড়ুন :তারকাদের রাখি বন্ধন

দলনেত্রীরসেই নির্দেশে রাজ্যের সর্বত্র রাখি বন্ধন উৎসব পালন করছেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা৷ হোর্ডিং-ব্যানার জুড়ে দেওয়া হয়েছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা৷ বাজছে রবীন্দ্রসঙ্গীত৷চলছে মিষ্টিমুখ৷কোথাও কোথাও এলাকার ক্লাব কিংবা সামাজিক সংগঠনগুলো তৃণমূলের এই কর্মসূচীতে সহায়তা করতে এগিয়ে এসেছে৷

রাখির দিন জনসংযোগে কোথাও যাতে খামতি না থাকে তাই আগে থেকেই পরিকল্পনা সাজিয়েছিল তৃণমূল নেতৃত্ব৷আগেই কেন্দ্রীয়ভাবে ঠিক করে দেওয়া হয়েছে প্রতিটা ওয়ার্ডে ও ব্লকে দলনেত্রীর ছবি সহ কি লেখা থাকবে৷ সব জায়গায় যাতে একইরকম প্রচার ফ্লেক্স বা হোর্ডিং-ব্যানার থাকে তারজন্য তৃণমূল ভবন থেকে সংশ্লিষ্ট নেতৃত্বে কাছে সিডি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে৷এমনকী রবীন্দ্রসঙ্গীত সহ কোন কোন গান বাজবে সেটাও ঠিক করে দেওয়া হয়েছিল৷

আরও পড়ুন: সম্প্রীতি রক্ষায় তৃণমূলের হাতিয়ার রাখিবন্ধন

তবে বিজেপিও এদিন তৃণমূলকে জমি ছাড়তে নারাজ৷ শান্তি-সম্প্রীতির বার্তা দিতে তারাও রাজ্য জুড়ে রাখি উৎসব পালন করছে৷এমনকি গোষ্ঠী সংঘর্ষকবলিত এলাকাতেও রাখিকে সামনে রেখে সংখ্যালঘুদের কাছে টানার চেষ্টা করছে তারা৷এদিন রাখি পরাতে বিধানসভায় যাবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷বাম-তৃণমূল, কংগ্রেস, যে দলের বিধায়ককে সামনে পাবেন তাঁর হাতেই বেঁধে দেবেন রাখি৷

আরও পড়ুন: রাখিবন্ধনে বোনেদের শৌচাগার উপহার দিল ভাইয়েরা

----
--