যোগদিবসে বিশ্ব রেকর্ড যোগগুরুর

কোটা (রাজস্থান): বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন যোগগুরু রামদেব৷ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে যোগগুরুর যোগমঞ্চেই সবচেয়ে বেশি জমায়েত ৷ দেড় লাখের বেশি মানুষের সঙ্গে যোগাসন করলেন রামদেব বাবা৷ যা রেকর্ড ছুঁল৷

রাজস্থানের কোটায় আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন করেন রামদেব৷ বিশ্বর রেকর্ড গড়তেই দেড় লাখের উপরে জমায়েতের ব্যবস্থা করা হয়৷ যোগগুরুর জনপ্রিয়তা এতটাই যে দেড় লাখ ছাড়িয়ে ভিড় ক্রমষ বাড়তে থাকে৷ বিশ্ব রেকর্ডের শংসাপত্র হাতে নিয়ে রামদেব জানান, একসঙ্গে দেড় লাখ মানুষের জমায়েতে আমি অভিভূত৷ মানুষের মধ্যে যোগাসনের উৎসাহ বাড়ছে৷

বিশ্ব রেকর্ড আসলে যোগসনে মানুষের জয়৷ অনুষ্ঠানে অপস্থিত ছিলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে৷ রামদেবকে বিশ্ব রেকর্ডের শংসাপত্র হাতে তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আন্তর্জাতি যোগ দিবস উপলক্ষে দেশ জুড়ে রেকর্ড ছোঁয়ার ধুম৷ বরফের লাদাকে সেনাদের সূর্যপ্রণাম, বা এক বুক জলে দাঁড়িয়ে জওয়ানদের যোগাসন, সহ মোট ১০০টি বিশ্ব রেকর্ড হয়েছে৷ যা গর্বের বলে মনে করছেন রামদেব বাবা৷

- Advertisement -

যোগাসন মঞ্চে ছিলেন পতঞ্জলির কোফাইউন্ডার আচার্য বালকৃষ্ণ৷ রামদেব জানান, যোগাসনে অংশগ্রহণকারী বেশিরভাগই পডুয়া৷ যা যোগাসনকে আরও ইতিবাচক করে তুলেছে৷ গোটা দেশ জুড়ে পালিত হচ্ছে চতুর্থ আন্তর্জাতিক যোগা দিবস৷ দেরাদুনের ফরেস্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটে যোগ দিবসের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷

এর পর দেশের যোগ শিবিরগুলিতে যোগ ব্যায়াম করতে দেখা গেল উপরাষ্ট্রপতি থেকে শুরু করে একঝাঁক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের৷ ৷ বিশ্ব দরবারে যোগাসনকে প্রতিষ্ঠা করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ ২০১৫ সালের ২১ জুন যোগ দিবসের সূত্রপাত৷ সেদিন দিল্লির রাজপথে প্রায় ৩০ হাজার মানুষের সঙ্গে যোগাসন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ২০১৪ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রসংঘের অধিবেশনে যোগাসনকে আন্তর্জাতিক ভাবে উদযাপনের বার্তা দেন প্রধানমন্ত্রী৷ যা মান্যতা দেয় রাষ্ট্রসংঘ৷ তারপর থেকেই বিশ্বব্যাপী যোগ দিবস পালন করা হয়৷তবে দেশবাসীকে যোগাসনে উৎসাহিত করতে রামদেবে ও পতঞ্জলী যোগপীঠের ভূমিকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে স্বীকার করেছেন খোদ মোদী৷ রামদেবকে বিশ্বরেকর্ড গড়ার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷

Advertisement ---
-----