‘রানি’র জন্মদিন সেলিব্রেশন

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

কলকাতা: উৎসবের আমেজ পিছু ছাড়ছে না ‘রাসমণি’ সেটের। ধারাবাহিকের একবছর পূর্তির পর এবার রানির জন্মদিন পালন। সব মিলিয়ে বেশ আয়শেই কাটছে দিনগুলো। গত ১০ই আগস্ট ছিল অভিনেত্রী দিতিপ্রিয়ার জন্মদিন। সেই উপলক্ষে বাড়ি থেকে জানবাজার সেট সব জায়গায় উৎসবের আমেজ।

রাত ১২ টা থেকে শুরু হয় বার্থ-ডে সেলিব্রেশন। কাটা য় রানির পছন্দের কেক। উপহার হিসাবে তালিকায় ছিল বড় পিঙ্ক টেডি। পেন, চকোলেট আর ফুলদানি। এদিকে সকাল বেলা সেটেও জমকালো আয়োজন। গিফট থেকে শুরু কেক সব ছিল তালিকায়। আর শেষে ছিল পেটপুজা। আর সেসব ছবি এখন ঝুলছে দিতির ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

দেখতে দেখতে এক বছর পাড় করে ফেলল ‘করুণাময়ী রাণী রাসমণী’। ছোট্ট দিতিপ্রিয়া আজ সকলের কাছে রাণী রাসমণি। আসলে মাটির প্রতিমায় প্রাণ প্রতিষ্ঠা করা হয়। কিন্তু রক্ত-মাংসের শরীরে রাণীকে প্রতিষ্ঠান করেছে এশহরবাসী।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে
- Advertisement -

মানুষ যে তাঁকে কতোটা আপন করে নিয়েছে তা এবার কালি পুজোতে গিয়ে টের পেয়েছিলেন অভিনেত্রী। দিতিপ্রিয়ার কথায়, ” সেবার অনেকে আমার পা পর্যন্ত ছুঁতে গিয়েছিল। এতভাল বাসা পেয়ে আমি সত্যি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। হঠাৎ করে নিজেকে কেমন স্পেশ্যাল মনে হতে শুরু করেছিল।” সেই একই প্রাপ্তি হয়েছে বছরপূর্তিতে দক্ষিণেশ্বরে পুজো দিতে এসে।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

রানিকে অ্যাপায়ণের খামতি রাখেনি শহরবাসী। লাল পাড় সাদা শাড়ি, পায়ে আলতা, এক গা সোনার গয়না পরে, রাণী দিতীপ্রিয়া যখন মা ভবতারিণী দর্শনের জন্য মন্দিরের সিঁড়ি বেয়ে উঠছিলেন, তখন অন্য দর্শনার্থীরা সরে গিয়ে জায়গা করে দিলেন তাঁকে। অভিনেত্রী জানালেন, ” আমি যখন রাণীর সাজে এমন্দিরে আসি তখন আমাকে সবাই বলে এমন্দির তোমাকে কী দেখাব! সবই তো তোমাদের!”রাসমণী রূপে মাত্র পনেরো বছর বয়সে সিরিয়াল প্রিয় দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন দ্বিতীপ্রিয়া। ‘বাঙালি ঘরের অন্দরমহলেই তিনি ‘রানী মা’ বলেই পরিচিত!

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

সিরিয়ালে এখন রাণীর মেয়ে বিয়ের পালা চলছে। আর মাস কয়েক পরেই আসবে দক্ষিণেশ্বর মন্দির তৈরির পর্ব। কিন্তু তার আগে আসতে চলেছে রাণীর জীবনের সবথেকে বড় ধাক্কা রাজচন্দ্রের মৃত্যু। তার আগেই মন্দিরে ঘুরে গেলেন রাণী।

Advertisement ---
---
-----