গোপনে সেক্স র‍্যাকেট চালাত তারা সহদেবের স্বামী রকিবুল

ধৃত রঞ্জিত ওরফে রকিবুল

নয়াদিল্লি: মিথ্যা পরিচয়ে শ্যুটার তারা সহদেবকে বিয়ে ফের জোর করে তার ধর্ম পরিবর্তনের অভিযোগে গ্রেফতার রঞ্জিত সিং কোহলী ওরফে রকিবুল হাসানের বিরুদ্ধে একটি অন্য অভিযোগও উঠেছে৷ একটি টিভি চ্যানেলের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রঞ্জিত মেয়ে পাচারের সঙ্গে যুক্ত ছিল ও গোপনে সেক্স র‍্যাকেট চালাত৷

ঝাড়খন্ড পুলিশ জানিয়েছে, রঞ্জিত সিং জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে যে সে বড় মাপের লোকেদের মেয়ে যোগান দিত৷ সে জানায় রাঁচির একটি হোটেলে সে এই কাজের জন্যই একটি ঘর বুক করে রেখেছিল৷ এছাড়াও তাদের সুবিধা দেওয়ার জন্য রঞ্জিত দুটি ফ্ল্যাটও বুক করে রেখেছিল৷ পুলিশ জানিয়েছে, রঞ্জিতকে গ্রেফতার করার সময় টখন তার ফোন ট্যাপ করা হয় তখন রঞ্জিত ‘সরকার’ নামের কোন ব্যাক্তির সঙ্গে কথা বলেছিল৷ ঝাড়খন্ড পুলিশের বক্তব্য অনুযায়ী ‘সরকার’র আসল নাম রোহিত যে রঞ্জিতের ব্যাঙ্ক অ্যাকউন্টে নিজের সুবিধার জন্য টাকা জমা করত৷ শুক্রবার আদালত রঞ্জিতকে তিনদিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়৷

রঞ্জিত সিং কোহলী ও তার মা কৌশল্যা রানিকে দিল্লি পুলিশ মঙ্গলবার দিল্লির দ্বারকা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে৷ রঞ্জিত যখন তার মাকে ফোন করার চেষ্টা করছিল তখন পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে৷

তারার সঙ্গে রঞ্জিতের কিছুদিন আগেই বিয়ে হয়৷ তারা জানিয়েছে, সে তার স্বামীর ধর্মের কথা বিয়ের পর জানতে পারে৷ তারার অভিযোগ, সে ইসলাম ধর্ম অবলম্বনে অস্বীকার করলে রঞ্জিত তাকে মারধর করত৷ তারা জানায়, তাকে জোর করে দিল্লি নিয়ে আসা হয়৷ দিল্লি এসে গত ১৯অগস্ট কোনভাবে নিজের পরিজনদের এমএমএস করলে তাকে সেখানে থেকে পরিবারের লোকেরাই মুক্ত করেন৷

তারার অভিযোগের পর রাঁচি আদালত গত ২৫ অগস্ট রঞ্জিত ও তার মায়ের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে৷

---- -----