প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু এখনও ধরা পড়েনি ধর্ষণকারীরা৷ ফলে বারবার বেলঘরিয়া থানার পুলিশের দ্বারস্থ হচ্ছেন নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবার। শুধু তাই নয়, লোক লজ্জার কারণে এক সপ্তাহ সংবাদমাধ্যমকেও নাবালিকার গণ-ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ্যে আনতে চাননি নির্যাতিতার পরিবার।

তবে রবিবার রাতে বেলঘরিয়া থানার সামনে দাঁড়িয়ে নির্যাতিতা নাবালিকা ও তাঁর পরিবার সংবাদমাধ্যমকে জানাতে বাধ্য হয় গোটা বিষয়টি৷ অভিযোগ, চারজন ধর্ষক এক সপ্তাহ আগে ঘর থেকে ওই নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে রাতের অন্ধকারে নির্জন কামারহাটির তিতলি ঘাট এলাকায় গণধর্ষণ করে। নির্যাতিতা নাবালিকা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত মুন্না ও রাজু সহ চার যুবক তাঁর উপর কার্যত পাশবিক অত্যাচার চালায়। তবে সে অভিযুক্ত মুন্না ও রাজু ছাড়া অন্য কাউকেই চিনতে পারেনি৷

Advertisement

ধর্ষণের ঘটনার পর ওই নাবালিকা বাড়িতে ফিরে বিষয়টি তাঁর পরিবারকে না জানালেও পরে শারীরিক অসুস্থতার কারণে গোটা ঘটনাটি নিজের মাকে খুলে বলেন। এরপরই গত ৫ দিন আগে বেলঘরিয়া থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবার। তবে অভিযুক্ত মুন্না, রাজু সহ বাকিদের পুলিশ এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি।

এদিকে থানায় অভিযোগ দায়েরের পর থেকেই ওই ধর্ষকরা নির্যাতিতার পরিবারকে বারবার হুমকি দিয়ে চলেছে৷ কোনও ভাবেই যেন ঘটনা প্রকাশ্যে না আসে এই হুমকি। কিন্তু পুলিশের কাছে ওই নির্যাতিতার পরিবার অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তির দাবি জানায়। তদন্তের কাজ শুরু করেছে বেলঘরিয়া থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই অভিযুক্তদের তল্লাশি শুরু করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে দাবি৷

----
--