বিরল-জটিল অস্ত্রোপচার সফল! পথ দেখাচ্ছে বাংলার সরকারি হাসপাতাল

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: এই প্রথম অ্যাড্রিনাল গ্রন্থির বিরল ও জটিল অস্ত্রোপচার হল বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। জেলার বিষ্ণুপুরের বছর সাতান্নর সরস্বতী কবিরাজের পেটে এই বিরল অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়।

গত ৫ আগস্ট বিষ্ণুপুরের বাসিন্দা সরস্বতী কবিরাজ পেটে ব্যথা নিয়ে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি হন। তার আগে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আল্ট্রাসনোগ্রাফি ও সিটি স্ক্যান করে রোগ নির্ণয় করে৷ তাঁরা বুঝতে পারেন সেখানে এই ধরণের চিকিৎসা সম্ভব নয়। তাই তড়িঘড়ি ওই মহিলাকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল সূত্রে খবর, এখানে এই প্রথম অ্যাড্রিনাল গ্রন্থির টিউমারের জটিল ও বিরল অস্ত্রোপচার করা হল। ডাক্তারি পরিভাষায় এই রোগের নাম মায়ো লাইপোমা। মূলত রক্ত জালক, চর্বি ও রক্তনালী জুড়ে টিউমারটি ছড়িয়ে পড়ে। গত ২৯ আগস্ট চিকিৎসক উৎপল দে-র নেতৃত্বে আট জনের একটি চিকিৎসকদের দল এই অস্ত্রোপচার করেন। জানা গিয়েছে, সরস্বতী কবিরাজের টিউমারটির ওজন ১৭৫ গ্রাম ছিল।

- Advertisement -

হাসপাতালের অধ্যক্ষ চিকিৎসক পার্থপ্রতিম প্রধান বুধবার সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ‘‘কিডনির ওপরে লিভারের নিচে প্রধান রক্তনালীর পাশ থেকে অতি সতর্কতার সঙ্গে টিউমারটি অস্ত্রোপচার করে বাদ দিতে হয়েছে। কোনও কারণে প্রধান রক্ত নালী আঘাতপ্রাপ্ত হলে অস্ত্রোপচারের সময়ই রোগীর মৃত্যুর সম্ভাবনা থাকে। হাসপাতালের চিকিৎসক উৎপল দে-র নেতৃত্বে এই প্রথম এখানে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় বিরল ও জটিল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হল। এখন ওই রোগী ভালো রয়েছেন৷’’ একই সঙ্গে এই হাসপাতালে পরিকাঠামোগত উন্নতির ফলে অনেক জটিল রোগের চিকিৎসার পাশাপাশি সফল অস্ত্রোপচার হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

এই সফল অস্ত্রোপচারের মূল দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক উৎপল দে বলেন, ‘‘মানব দেহের কিডনির ঠিক মাথার উপরে ও মূল রক্তনালীর পাশে এই টিউমারের অবস্থান হওয়ায় অস্ত্রোপচারের ক্ষেত্রে ভীষণ রকমের জটিলতা ছিল। বর্তমানে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ও উন্নত অপারেশন থিয়েটার থাকার জন্যই এই জটিল ও বিরল অস্ত্রোপচার সম্ভব হয়েছে৷’’ পাশাপাশি নিজের জেলায় এই রোগের সফল অস্ত্রোপচার হওয়ায় খুশি সরস্বতী কবিরাজের পরিবারের লোকেরাও।

Advertisement ---
---
-----