দলত্যাগীদের নেতা-কর্মীদের ‘গোরু-ছাগল’ বললেন সূর্যকান্ত

জলপাইগুড়ি: দলবদলের ‘গোপন রোগে’র আক্রান্ত দলের নেতা-কর্মীদের ‘ওষুধ’ দিলেন সূর্যকান্ত মিশ্র৷ শনিবার জলপাইগুড়ি মাদ্রাসা ময়দানে জেলা সিপিএমের ডাকা প্রকাশ্য সমাবেশে দাঁড়িয়ে দলবদলকারী বাম নেতা-কর্মীদের ‘গোরু-ছাগলে’র সঙ্গে তুলনা টানলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র৷

দলের খারাপ সময়ে যাঁরা দল ছেড়ে চলে যাওয়া নেতা-কর্মীদের প্রতি সূর্যের স্বীকারোক্তি, ‘‘গত ৩৪ বছরে বামফ্রন্টের অনেক নির্বাচিত সদস্য দীর্ঘ বছর ধরে তাঁদের চেয়ারে সিটিয়ে ছিলেন। চেয়ার থেকে ওঠার চেষ্ট করেও চেরার থেকে উঠতে পারেননি৷ এঁরা চেয়ারের ক্ষমতায় সিটিয়ে গিয়েছেন। আমরা এঁদের চিনতে পারিনি। দলে থাকলে এদের শোকজ, বহিষ্কার করতে হতো।’’

এখানেই না থেমে তৃণমূল নেত্রীকে আক্রমণ করে সূর্যকান্তের মন্তব্য, ‘‘বামফ্রন্টের সমস্ত গোরু-ছাগলদের দলে নিচ্ছে তৃণমূল। নিজের মন্ত্রীদেরই সামলাতে পারছেন না। এই দলত্যাগী গোরু-ছাগলদের দলে নিয়ে হজম করতে পারবেন তো?’’

- Advertisement -

এদিন দলবদলের গোপন অসুখের ওষুধ দিতে গিয়ে পলিটব্যুরো সদস্য তথা রাজ্য সিপিএম সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘‘সিপিএমে এখনও যেসমস্ত চেয়ার প্রিয় নির্বাচিত সদস্য সদস্যারা রয়েছেন, তাঁরা চাইলে দল ছেড়ে চলে গেলেও চলে যেতে পাড়েন। তাতে দলের কোন ক্ষতি হবে না।’’

দলবদলের পাশাপাশি, রাজ্যের উন্নয়নের প্রসঙ্গ তুলে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে বলেন, ‘‘ক্ষমতায় আসার আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন, রাজ্যে ৯৫%, কখনও বা ৯৯% শতাংশ উন্নয়নমূলক কাজ হয়ে গিয়েছে। এখন যখন মাত্র ১-৫ শতাংশ কাজ বাকি আছে, তখন এই সামান্য অংশের কাজের জন্য কেন তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা অযথা নিজেদের মাথা বিক্রি করার জন্য বসে রয়েছেন। সাহস থাকলে শিরদাঁড়া খাঁড়া করে দাঁড়ান৷’’

Advertisement ---
---
-----