ধর্ষণে অভিযুক্ত গডম্যানের পা ছুঁয়ে আশীর্বাদ চাইলেন প্রাক্তন বিচারপতি

যোধপুর: স্বঘোষিত গডম্যান আসারাম বাপুর বিরুদ্ধে আশ্রমে এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ রয়েছে৷ সেই অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়৷ জেলেই দিন কাটাচ্ছে এই গুরু৷ এমনই এক কীর্তিমান গডম্যানের সামনে হাত জোড় করে নতজানু হলেন সিকিম হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সুন্দর নাথ ভার্গব৷ গডম্যানের পা ছুঁয়ে আশীর্বাদ নেন তিনি৷ সেই ছবি ভাইরাল হতেই স্তম্ভিত আইনজীবী মহলের একাংশ৷ শুরু হয়েছে বিতর্ক৷

কেউ বলেছেন, এই ঘটনাই প্রমাণ করে যতই ধর্ষণের মতো গুরুতর অভিযোগ উঠুক না কেন এখনও কিছু মানুষের মধ্যে আসারাম বাপুর প্রতি ভক্তি অটুট৷

আরও পড়ুন: নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন আসারাম বাপুর নিরাপত্তা কর্মীরা

- Advertisement -

ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত আসারাম বাপুকে শনিবার যোধপুর আদালতে নিয়ে আসা হয়৷ সেই সময় আদালতের বাইরে পুলিশের ঘেরাটোপে থাকা গডম্যানকে দেখতে এগিয়ে যান সিকিম হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সুন্দর নাথ ভার্গব৷ নতজানু হয়ে তার পা ধরে আশীর্বাদ নেন তিনি৷ বিচারপতির সঙ্গে থাকা দুই নিরাপত্তা কর্মীকেও দেখা গিয়েছে গডম্যানের পা ছুঁতে৷ ভক্তের ভক্তি দেখে খুশি হয়ে দু’হাত তুলে আশীর্বাদ করেন ‘ধর্ষক’ আসারাম৷ এরপরই তাকে পুলিশ ভ্যানে তুলে জেলে নিয়ে যাওয়া হয়৷

আরও পড়ুন: আসারাম বাপুর জামিনের আবেদন, ডেটই দিল না সুপ্রিম কোর্ট

ধর্ষণে অভিযুক্ত এমন এক ব্যক্তির পা ছোঁয়ায় স্বাভাবিকভাবেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন ওই প্রাক্তন বিচারপতি৷ গোটা ঘটনাটি নিয়ে সুন্দর নাথ ভাগর্বের প্রতিক্রিয়া , বিশেষ কাজে যোধপুরে এসেছিলাম৷ যখন শুনলাম আদালতে আসারাম বাপুকে আজ হাজির করা হবে তখন তার দর্শন পেতে ছুটে গেলাম৷ অন্যান্য দিনের থেকে এদিন আসারাম বাপুকে অনেক আত্মবিশ্বাসী দেখিয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘বিচারপতি ভাগর্ব আমার অনুগামীদের একজন৷ তিনি আমাকে দীর্ঘদিন ধরে চেনেন৷ আমার সঙ্গে দেখা করতে চেয়ে আদালতে আসেন৷ উনার অনেক উঁচুস্তর পর্যন্ত যোগাযোগ আছে৷ আশা করি ভালো কিছু এবার হবে’’ শেষের মন্তব্যটি যথেষ্ট ইঙ্গিত বহুল৷

Advertisement
---