ফাইল চিত্র৷

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: রাতে গোয়ালে রেখে এসেছিলেন চারটি বলদ৷ সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখেন গোয়াল শূন্য! হামেশাই রাতের অন্ধকারে গ্রাম থেকে গরু চুরি হচ্ছে৷ অভিযোগ, বারংবার পুলিশ, প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি৷

অগত্যা, পুলিশি নিস্ক্রিয়তার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে বাঁকুড়ার জয়পুরের টানাদীঘি গ্রামের মানুষ ব্যস্ততম আরামবাগ-বিষ্ণুপুর রাস্তার চাতরার মোড় দীর্ঘক্ষণ অবরোধ করে রাখলেন৷

Advertisement

অবরোধের জেরে ব্যস্ত সময়ে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়৷ আটকে পড়ে বাস, লরি, নিত্যযাত্রী থেকে স্কুল পড়ুয়া সকলেই৷ ভোগান্তির শিকার হতে হয় সকলকে৷ গ্রামবাসীদের অভিযোগ, হামেশাই রাতের অন্ধকারে কে বা কারা গ্রামের গোয়াল থেকে গরু চুরি করে নিয়ে পালাচ্ছে৷ অথচ পুলিশ প্রশাসনকে বারংবার জানিয়েও খোয়া যাওয়া একটি গরুও উদ্ধার হয়নি৷ চোরের হদিশ মেলেনি৷ কারণ, পুলিশ কোনও পদক্ষেপই নিচ্ছে না৷

অবরোধকে কেন্দ্র করে এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় জয়পুর থানার পুলিশ। পুলিশি আশ্বাসে অবশেষে গ্রামবাসীরা পথ অবরোধ তুলে নেন৷ একই সঙ্গে তাঁরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অবিলম্বে পুলিশ সক্রিয় না হলে ফের তাঁরা অবরোধ-আন্দোলনের পথে হাঁটবেন৷

টানাদীঘি গ্রামের বাসিন্দা সুশান্ত পাল ও মহাদেব মণ্ডল বলেন, ‘‘বুধবার রাতে বহুমূল্যবান চারটি গরু চুরি যায়। সকালে উঠে গোয়াল ঘরে গেলে দেখি গরু গুলি নেই৷ গোয়াল শূন্য৷ এবারেই প্রথম নয়৷ এর আগেও গ্রামে অনেকের গোয়াল থেকে গরু চুরি হয়েছে৷ তাই বাধ্য হয়েই পুলিশকে সক্রিয় করতে আমরা আন্দোলনে নেমেছি৷ কারণ, পুলিশ সক্রিয় হলে গরু চোর ধরা পড়বেই৷’’

----
--