রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন সেনাপ্রধান

নেপিদ: নিজেদের জায়গায় থাকলে, সুরক্ষিত থাকবে রোহিঙ্গারা৷ অর্থাৎ বাংলাদেশ থেকে ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গারা শুধু তাদের জন্য তৈরি ‘আদর্শ গ্রামে’ই নিরাপদ।

রোহিঙ্গাদের নিজের দেশে ফেরা এবং ফিরে যাওয়ার পর তাদের স্থায়ী এলাকা নিয়ে নতুন করে আশঙ্কা তৈরি হল৷ এই সতর্কতা জারি করেছেন মায়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাং। গত ৩০ এপ্রিল নেপিদ সফরে গিয়েছিলেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা৷

তাদের সঙ্গে এক আলোচনায় একথা স্পষ্ট করেছেন সেনাপ্রধান৷ ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা সেনাপ্রধান নির্দেশিত, আদর্শ গ্রামের বাইরে যেতে দেওয়া হবে না রোহিঙ্গাদের। অর্থাৎ, আবদ্ধ পরিবেশেই জীবন কাটাতে হবে তাদের৷

- Advertisement -

সেনাপ্রধান মিনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এক পোস্ট করেও একথা জানিয়েছেন তিনি৷ এদিন তিনি জানান, রাষ্ট্রসঙ্ঘের আধিকারিকদের বলা হয়েছে রোহিঙ্গারা তাদের জন্য সুনির্দিষ্ট এলাকার মধ্যে থাকলে তাদের নিরাপত্তা নিয়ে কোনও দুশ্চিন্তার প্রয়োজন নেই।

এরআগে, মিন বলেন রোহিঙ্গাদের ওপর কোনও ধরণের যৌন অত্যাচার চালায়নি মায়ানমার সেনা৷ যে অভিযোগ উঠেছে, তা সম্পূর্ণ ভুয়ো৷ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে সেনাপ্রধান দাবি করেন, মায়ানমারের সেনা-ইতিহাসে কোনও যৌন নিপীড়নের নজির নেই।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা মুসলিম অধ্যুষিত মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা শুরু হয় বলে অভিযোগ৷ অভিযোগ ওঠে দেশের সেনার বিরুদ্ধে৷

Advertisement ---
-----