কাজান: গত বিশ্বকাপে ঘরের মাঠে জার্মানদের কাছে ১-৭ গোলের লজ্জা নিয়ে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল ব্রাজিল৷ আর পুতিনের দেশের বিশ্বকাপ থেকে সেলেকাওরা বিদায় নিয়েছে বেলজিয়ামের কাছে হেরে৷

ব্রাজিল বিদায়ে বিষণ্ণ দু’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য রোনাল্ডো৷ সেলেকাওদের জন্য এটা খুবই খারাপ ফল বলে মনে করছেন প্রাক্তন ব্রাজিলীও গোলমেশিন৷ হতাশ হলেও ব্রাজিল দলের সঙ্গে থেকে কোচ তিতেকে কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে চান না রোনাল্ডো৷

Advertisement

শুক্রবার রাতে কাজান এরিনায় কোয়ার্টার-ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে ১-২ গোলে হারায় ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন শেষ হয়ে যায় ব্রাজিলের৷ ২০১৪ বিশ্বকাপে নিজেদের মাঠে সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে হারের থেকে বেড়িয়ে আসতে রাশিয়ায় এবার চ্যাম্পিয়ন হতে চেয়েছিলেন নেইমার-জেসুসরা৷

২০০২ সালে ব্রাজিলকে সর্বশেষ বিশ্বকাপ এনে দেওয়া রোনাল্ডো বলেন, ‘আমরা নিজেদের মাঠে সেমিফাইনালে হেরেছিলাম৷ রাশিয়ায় কোয়ার্টার ফাইনালে হারলাম৷ কিন্তু ব্রাজিল দলের কাছে আমাদের মতো অনেকেরই প্রত্যাশা ছিল৷ কিন্তু নেইমাররা সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে না-পারায় স্বভাবতই আমার মতো অনেক ব্রাজিল ভক্তই হতাশ৷’

ব্রাজিলের চ্যাম্পিয়ন ফরোয়ার্ড আরও বলেন, ‘পরিকল্পনা করে আমাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে হবে৷ খারাপ না-খেলা সত্ত্বেও এটা আমাদের কাছে ভয়ঙ্কর ফল৷ তবে আমি বিশ্বাস করি কোচ হিসেবে তিতে অবশ্যই থেকে যাবেন৷ কারণ তিনি চমৎকার কাজ করছেন৷’

কাজান এরিনায় পাঁচ বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিদায়ের শুরুটা হয়েছিল ফার্নান্ডিনহোর আত্মঘাতী গোলে৷ ম্যাচের ১৩ মিনিটে সেভ করতে গিয়ে
কর্নার থেকে ভিনসেন্ট কোম্পানির হেড ফার্নান্ডিনহোর হাতে লেগে জালে ঢুকে যায়৷ ৩১ মিনিটে ব্রাজিলের ডিফেন্স চিড়ে লুকাকুর পাস থেকে দুরন্ত গোল ডিব্রুইনের৷ ২০ গজ দূর থেকে ডান পায়ে শটে বাঁ-পোস্টের নিচের কর্নারে বল জড়িয়ে দেন ডি’ব্রুইন৷ ম্যাচের সেরা হয়েছেন ম্যাঞ্চেস্টার সিটির এই তারকা৷ ০-২ পিছিয়ে পড়ে দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকবার বেলজিয়ামের অর্ধে বিপদ তৈরি করলেও শেষ পর্যন্ত ম্যাচ জিততে পারেননি ব্রাজিল৷

৭০ মিনিট পর্যন্ত পিছিয়ে থেকে মাঝ মাঠে লোক বাড়াতে পাউলিনহোকে বসিয়ে অগস্টোকে নামান ব্রাজিল কোচ তিতে৷ ফলও মেলে হাতেনাতে৷ কুটিনহোর ক্রস থেকে দ্বিতীয়ার্ধের ৭৬ মিনিটে হেডে ব্রাজিলের হয়ে ব্যবধান কমান অগস্টো৷ শেষ ২০ মিনিট প্রতিআক্রমণে ঝড় তুললেও শেষরক্ষা হয়নি৷ ৮৩ মিনিটে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন কুটিনহো৷ ৯৩ মিনিটে আবার নেইমারের শট ফিস্ট করে বারের উপর দিয়ে উড়িয়ে দেন বেলজিয়ামের গোলকিপার৷

এ নিয়ে গত চার বিশ্বকাপের তিনটিতেই লাতিন পরাশক্তিরা বিদায় নিল শেষ আট থেকে৷ চেষ্টা করেও ম্যাচ জিততে না-পারার কথা মেনে নিলেন কুটিনহো৷ তিনি বলেন, ‘আমরা ফাইনাল পর্যন্ত যেতে চেয়েছিলাম৷ সেরাটা দেওয়ার চেষ্টাটা করেছিলাম৷ সবাই নিজের সর্বস্ব দিয়েছে৷ আমি নিশ্চিত চারিদিক থেকে সমালোচনা ধেয়ে আসবে৷ কিন্তু জীবন থেমে থাকে না৷ খেলায় হার-জিত রয়েছে৷ এটা আমাদের মেনে নিতে হবে৷’

----
--