নিওঁ: নতুন ক্লাব জুভেন্তাসে এখনও নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি। দুটি ম্যাচ খেলা হয়ে গেলেও তাঁর পা থেকে গোল দেখতে পারেনি ফুটবল বিশ্ব। তাতে কী? রেকর্ড কিংবা পুরস্কার তাঁর মজ্জায় মজ্জায়। ফ্রান্সের বিস্ময় বালক কিলিয়ান এমবাপে এবং ক্রোট তারকা লুকা মদ্রিচের সঙ্গে প্রবলভাবে রয়েছেন উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলার হওয়ার দৌড়ে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে সেই সম্মান ছিনিয়ে নিতে পারবেন কিনা সেটা সময়ই বলবে, কিন্তু তার আগে উয়েফার বর্ষসেরা গোলের মালিক হয়ে গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

গত মরসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বর্তমান ক্লাব জুভেন্তাসের বিরুদ্ধে তাঁর বাইসাইকেল কিকে করা গোল তাক লাগিয়ে দিয়েছিল ফুটবল বিশ্বকে। ফুটবলপ্রেমীদের চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল রোনাল্ডোর করা সেই গোল। অচিরেই বর্ষসেরা গোলের তালিকাতেও নাম তুলে ফেলেছিলেন পর্তুগিজ তারকা। অবশেষে সিআরসেভেন’র সেই গোলই ছিনিয়ে নিল ২০১৭-১৮ মরসুমে ইউরোপের বর্ষসেরা গোলের শিরোপা।

Advertisement

লিভারপুলকে হারিয়ে ২০১৭-১৮ মরসুমে ইউরোপ সেরা ক্লাবের শিরোপা ছিনিয়ে নেয় রোনাল্ডোর পুরনো ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। তার আগে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে জুভেন্তাসের বিপক্ষে বাইসাইকেল ভলিতে এই গোল করেন পর্তুগিজ ফুটবলের পোস্টার বয়। ঘরের মাঠে কার্ভাহালের সেন্টার থেকে ভেসে আসা বল শরীর শূন্যে ছুঁড়ে দিয়ে জালে রাখেন তিনি। ডাগ আউটে বসে তাঁর এই গোল দেখে হতবাক হয়ে যান কোচ জিনেদিন জিদান। গোটা গ্যালারি বিস্ময়ে উঠে দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানায় তাঁকে।

৩ লক্ষ ৪৬ হাজার ৯১৫ ভোটের মধ্যে রোনাল্ডোর এই গোল পেয়েছে প্রায় ২ লক্ষের কাছাকাছি ভোট। তাঁর এই গোল বর্ষসেরার শিরোপা ছিনিয়ে নেওয়ায় স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত জুভেন্তাস তারকা। সোশ্যাল মিডিয়ায় পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী লিখেছেন, ‘সকলকে ধন্যবাদ আমকে সমর্থন করার জন্য। মুহূর্তটা কখনও ভোলার নয়, বিশেষ করে স্টেডিয়াম জুড়ে সমর্থকরা যেভাবে রিঅ্যাক্ট করেছিল।’

ইউরোপা লিগে ফরাসী ক্লাব মার্সেইয়ের হয়ে দিমিত্রি পায়েতের করা গোল ছিনিয়ে নিয়েছে দ্বিতীয় বর্ষসেরা গোলের সম্মান। পাশাপাশি অনুর্ধ্ব-১৭ মহিলা ইউরো কাপের ফাইনালে স্পেনের ইভা নাভারো’র গোল পেয়েছে তৃতীয় বর্ষসেরা গোলের শিরোপা।

২০১৬-১৭ মরসুমে এই সম্মান পেয়েছিলেন জুভেন্তাসে রোনাল্ডোর সতীর্থ মারিও ম্যানজুকিচ। তার আগের দুই মরসুমে ইউরোপের বর্ষসেরা গোলের সম্মান গিয়েছিল লিওনেল মেসির দখলে। তাই চলতি মরসুমের শুরুতে এই সম্মান পরবর্তী ম্যাচের আগে যে রোনাল্ডোর আত্মবিশ্বাস কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। নতুন ক্লাবের হয়ে রোনাল্ডোর পা থেকে এমনই আরও গোল দেখতে মুখিয়ে জুভে সমর্থকেরা।

----
--