৮০০ কোটির ঋণের দায়ে CBI জেরার মুখে ‘রোটোম্যাক’ মালিক

কানপুর: দু’দিনের নাটকের পর অবশেষে ধরা পড়ল ‘রোটোম্যাক’ মালিক। সোমবার তাকে আটক  করা হয়েছে। তাঁর পুরো পরিবারকেই জেরা করছে সিবিআই।

নীরব মোদীর ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরই অভিযোগ ওঠে রোটোম্যাক সংস্থার মালিক বিক্রম কোঠারির বিরুদ্ধে। ৮০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে তিনি পলাতক বলে খবর প্রকাশিত হয় সংবাদমাধ্যমে। জানা যায়, তিনি দেশের পাঁচটি ব্যাংক থেকে ওই পরিমাণ টাকা ঋণ নিয়েছেন। গত সপ্তাহ খানেক ধরে বন্ধ রয়েছে তাঁর মল রোডের অফিসও। এই অভিযোগ সামনে আসার পরই রোটোম্যাকের মালিক বিক্রম কোঠারি জানালেন যে তিনি কোথাও পালাননি। তিনি কানপুরেই আছেন।

এক বিবৃতি প্রকাশ করে তিনি জানান, দেশ ছেড়ে পালাননি তিনি। রোটোম্যাক গ্লোবাল প্রাইভেট লিমিটেড সংস্থার চেয়ারম্যান ও এমডি এই বিক্রম কোঠারি। অভিযোগ, তিনি এলাহবাদ ব্যাংক, ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া, ব্যাংক অফ বরোদা, ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংক ও ইউনিয়ন ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া থেকে ৮০০ কোটি ঋণ নিয়েছেন তিনি। ইউনিয়ন ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া এলাহবাদ ব্যাংক সূত্রে খবর, তিনি ঋণের টাকা বা সুদ কোনোটাই ফেরৎ দেননি।

- Advertisement -

আরও খবর, কোঠারিকে ঋণ দেওয়ার সময় কিছু নিয়ম-কানুন লঘু করা হয়েছিল। এমনকি গত কয়েকদিন ধরে ব্যাংকের আধিকারিকেরা তাঁর মল রোডের অফিসে যাতায়াতও করেছেন, কিন্তু অফিসটিবধ ছিল। কোঠারিকে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা হলেও তা ব্যর্থ হয়।

রবিবার কোঠারি এক বিবৃতি দিয়ে বলেন, ‘প্রথমত এই ঘটনাকে দুর্নীতি বলবেন না। আর আমি দেশ ছেড়ে কোথাও যাচ্ছি না। আমি কানপুরেই রয়েছি। ব্যাংক আমার সংস্থাকে নন পারফর্মিং অ্যাসেট হিসেবে উল্লেখ করলেও ডিফল্টার বলেনি। আমি ঋণ নিয়েছি এবং খুব তাড়াতাড়ি তা শোধ দিয়ে দেব।’ এলাহবাদ ব্যাংকের ম্যানেজার রাজেশ গুপ্তা জানিয়েছে, ‘যদি ঋণ শোধ করতে না পারে, তাহলে আমরা বিক্রম কোঠারির সম্পত্তি বিক্রি করে সেই টাকা নেব।’

Advertisement ---
---
-----