এলাহাবাদ: উর্দিতে এবার ক্যামেরা নিয়ে ঘুরবেন আরপিএফ জওয়ানরা৷ রেলের নিরাপত্তার স্বার্থে এমনই সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের৷ যে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা এবার লেন্স বন্দী হয়ে যাবে ওই বডি ক্যামেরায়৷

ফলে যে কোনও ঘটনার সাক্ষ্য প্রমাণ থাকবে রেলের হাতে৷ প্রয়োজনে সেগুলি ব্যাবহার করা যাবে৷ তাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলমন্ত্রক বলে খবর৷ খুব তাড়াতাড়িই এই সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ এর ব্যয় ও অন্যান্য দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে রেলমন্ত্রক সূত্রে খবর৷ আরপিএফ জওয়ানদের উর্দিতে বসানো থাকবে এই বডি ক্যামেরা৷ যে কোনও রকম ঝামেলার সরাসরি ফুটেজ পাওয়া যাবে এর ফলে৷

প্রাথমিক পরীক্ষা নিরীক্ষা সফল হওয়ার পরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে রেলমন্ত্রক৷ জোন অনুযায়ী আরপিএফের হাতে এসে পৌঁছবে বডি ক্যামেরা৷

শুধুমাত্র অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নয়৷ অনেক ক্ষেত্রেই যাত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে আরপিএফের জওয়ানদের বিরুদ্ধে৷ সেই ঘটনাগুলির সত্যতাও যাচাই করা যাবে বডি ক্যামেরার মাধ্যমে৷ এই ক্যামেরাগুলি বন্ধ করা যাবে না ও শার্টের পকেটে আটকানো থাকবে ক্যামেরা৷

ট্রেনের ভিতরে কর্তব্যরত জওয়ানদের উর্দেতে প্রথম লাগানো হবে এই ক্যামেরা৷ তারপর ধীরে ধীরে প্ল্যাটফর্ম, স্টেশন চত্ত্বরে দাঁড়িয়ে থাকা আরপিএফ জওয়ানদের বডি ক্যামেরা দেওয়া হবে৷ প্রায় ৭০০০০ আরপিএফ জওয়ান ও আধিকারিক কাজ করেন দেশের ৬৭টি জোনে৷ ১৭ টি রেল জোনের এই কর্মীদের বডি ক্যামেরা দেওয়া সময় সাপেক্ষ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷

--
----
--