লাভ জিহাদের শিকার নাকি শর্মিলাও!

নয়াদিল্লি:  শর্মিলা ঠাকুরও নাকি লাভ জিহাদের শিকার! বিশ্ব সম্মেলনে এমনই মন্তব্য হিন্দু কংগ্রেসের। এবছর আমেরিকার শিকাগোয় অনুষ্ঠিত বিশ্ব হিন্দু সম্মেলনের আলোচনার বিষয় ছিল ‘লভ জিহাদ’। ভিন্ন ধর্মের বিয়ের উদাহরণের ব্যানারে মুড়ে ফেলা হয়েছিল এই সম্মেলনের চারদিকে। আর সেখানেই ভারতীয় অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর ও তাঁর স্বামী প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক নবাব মনসুর আলি খান পতৌদির বিয়েকেও লাভ জিহাদ হিসেবে দেখানো হয়। এবং অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকু্রও নাকি লভ জিহাদের শিকার হন এমনটাই দাবি করা হয়।

হিন্দু সম্মেলনে এক প্রতিনিধি ও লেখক দিলীপ আমিন দাবি করেন,”শর্মিলা ঠাকুরকে জোর করে বিয়ের সময়ে ধর্মান্তকরণ করতে হয়েছিল, ইসলাম ধর্মে গিয়ে তাঁর নাম পরিবর্তন করতে হয়েছিল। তাঁর নাম হয়েছিল বেগম আয়েষা সুলতান। শর্মিলা ঠাকুরকে তাঁর ছেলে মেয়েদেরও মুসলমান হিসেবে মানুষ করতে হয়েছে।তাদের নামও পরিবর্তন করতে হয়েছিল।”

পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, শর্মিলার ছেলে সইফ এক হিন্দু মহিলা অমৃতা সিংহকে বিয়ে করেন। তাদের দুটি সন্তানও রয়েছে। সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় তাঁরা সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন। সইফের দ্বিতীয় স্ত্রী করিনা কাপুর অবশ্য ইসলামীয় নাম নিতে অস্বীকার করেন।”আমাদের প্রশ্ন হল,তাঁদের সন্তান কি হিন্দুত্বের ছায়ায় মানুষ হতে পারবে?”প্রশ্ন তোলেন আমিন। পাশাপাশি বিশ্বজুড়ে হিন্দুদের যেভাবে হত্যা করা হচ্ছে তা নিয়েও গর্জে ওঠেন তিনি।

- Advertisement -

এদিকে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত দ্বিতীয় বিশ্ব হিন্দু সম্মেলনে ভাষণ দিতে গিয়ে বলেন,”হিন্দুরা কারও বিরোধিতা করে না কিন্তু অনেকে আমাদের বিরোধিতা করেন। দুনিয়াই এরকম। আপনি নিজেকে পরিবর্তন করতে পারেন। তাদের ক্ষতি না করে এটা দেখতে হবে, যাতে তারা আপনার ক্ষতি না করতে পারে।”

১৮৯৩ সালে স্বামী বিবেকানন্দ শিকাগোর মাটিতে দাঁড়িয়েই বিশ্ব ভাতৃত্বের আহ্বান জানান। তাঁর সেই বক্তব্যের ১২৫ তম বর্ষপূর্তি এই বছর। ভাগবত আরও বলেন, একতাই তাদের লক্ষ্য। একতা ছাড়া হিন্দু সমাজ উন্নতির পথে এগোতে পারবে না।

শর্মিলা ও পতৌদি ১৯৬৯ সালের ২৭শে ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাঁদের বিয়েকে কেন্দ্র করেই দুই হাই প্রোফাইল পেশা কাছাকাছি চলে আসে। ক্রিকেট ও সিনেমা। ২০১১ সালে মারা যান পতৌদি, বিয়ের ৪৯ বছর পর এই প্রশ্ন কতটা প্রাসঙ্গিক তা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। যদিও এবিষয়ে এখনও পর্যন্ত রাজনৈতিক বা সিনে জগতের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Advertisement ---
---
-----