আপনার ছোটবেলা ফিরিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব এবার রূপঙ্করের কাঁধে

অতসী মুখোপাধ্যায়: ছেলেবেলা বা মেয়েবেলায় কাটানো দিন গুলো আজও আমাদের মনের মণিকোঠায় একটা আলাদা জায়গা জুড়ে রয়েছে। কাদা মাখা বৃষ্টির বিকেলে খেলার পর এক ছুট্টে বাড়ি ফিরে প্রথম শব্দটাই বেড়ায় ‘মা’। তারপর মায়ের কাছে নানা রকমের আবদার থাকে, খেতে দাও, জল দাও, সারাদিনের গল্পের ঝুলি মাকে শোনানো, মায়ের আচলে মুখ মোছা, নানা রকম কথা মা কে না বললে দিন টা অসম্পূর্ণ যায়। তবে আজ আমরা সবাই ব্যস্ত। নানা কাজের মাঝে কখন মায়ের ফোন টা বেজে বেজে কেটে যায় টের ও পাইনা। আমাদের প্রত্যেকটা মুহূর্তের সাক্ষী থাকে আমাদের মা। তাই মার কথা মাথায় রেখেই রূপঙ্করের ‘ইউনিসন’ নিয়ে আসছে বেশ কিছু গানের সম্ভার। তার মধ্যে একটি হল ‘মা’।

এবার আশা যাক ‘ইউনিসন’ এর কথায়। রূপঙ্কর তৈরি করেছে একটি নতুন ব্যান্ড, যার নাম ‘ইউনিসন’। এই ব্যান্ডের একটি বিশেষত্ব হল,কোন যন্ত্র ছাড়াই ,বাদ্যযন্ত্রকে গলার আওয়াজে শোনানো। এরকম অভিনব কাজ বাংলায় আগে হয়নি।

- Advertisement -

‘ইউনিসন’ প্রসঙ্গে রূপঙ্কর জানিয়েছেন, “এই ব্যান্ডের পরিকল্পনা বহুদিনের। বহুদিন ধরেই ভাবছিলাম নতুন করে কি করা যায়। তখনই এই এক্সপেরিমেন্ট এর কথা মাথায় এল। বাদ্যযন্ত্র কে মানুষের গলায় বাজালে কেমন হবে। বিদেশে এমন কাজের সংখ্যা অনেক, আমার যতদূর মনে পড়ছে বাংলায় এই কাজ আগে হয়নি। সকলে মিলে কলেজ লাইফে যেমন গান করে, সেরকমই একটা ফিল নিয়ে আমরা কাজ টা করেছি। সাতজন রয়েছে এই ব্যান্ডে, আমি লিড ভোকালিস্ট। চৈতালি, শর্মি, রৌনক,শঙ্কর,অয়ন,সুজয় এবং আর্য সকলে মিলে তৈরী করেছি ‘ইউনিসন’। কিন্তু শুরুটা কিভাবে করব বুঝে উঠতে পারছিলাম না।’’

 

রূপঙ্করের কথায়, ‘‘তখন এসভিএফ মিউজিক এর কাছে যাই। ওরা বিষয় টাকে এপ্রিসিয়েট করে। তারপর থেকেই শুরু হয় ‘ইউনিসন’ এর যাত্রা। তবে গানগুলো এতটাই অভিনব এর দুটো দিক রয়েছে।এক হতে পারে দর্শক গানগুলো খুব পছন্দ করবে, আরেকটা হতে পারে নয়ত বুঝতেই পারবে না। এই দুটোর মধ্যে একটা। আশা করা যায় সকলের ভালোই লাগবে। আর ‘মা’ কে নিয়ে বানানো যে গানটা রয়েছে ওটা বেসিক্যালি সবাই নিজের সঙ্গে রিলেট করতে পারবে।কারণ মা আমাদের কাছে দামি একটা শব্দ। আমি মাকে হারিয়েছি বহুদিন আগে। তাই আমি ও মাকে বড্ডই মিস করি। ছোট বেলার বেশ কিছু গান আছে, কলেজ লাইফের ফিল ও পাবে দর্শক।”

মোট ছ’টি গান রয়েছে এই ব্যান্ডে। পড়ে যদিও মিউজিক ভিডিও করার ও পরিকল্পনা রয়েছে। গান লেখার দায়িত্বে রয়েছেন রূপঙ্কর, গৌরব এবং সুজয়। সুরের দায়িত্ব রূপঙ্করের কাঁধে। প্রথমে এক একটা করে গানের ভিডিও রিলিজ করা হবে। পরে একসঙ্গে সব কটি গান প্রকাশ করার প্ল্যান রয়েছে। তাই আপনিও তৈরি হয়ে যান,খুব শীঘ্রই ‘ইউনিসন’ এর কাছ থেকে অভিনব কিছু পেতে চলেছেন আপনারাও।

Advertisement ---
---
-----