মস্কো:  আরও অত্যাধুনিক বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা প্রকাশ্যে আনল রাশিয়া। সিরিয়ার হেমেইমিম বিমানঘাঁটিতে রাশিয়ার এই নতুন বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যা নিয়ে কিনা নতুন করে উত্তেজনা ছড়াতে পারে বলে ইতিমধ্যে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে রাজনৈতিকমহল। এমনটাই সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে রাশিয়ার কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে।

রাশিয়ার একটি নিউজ ওয়েবসাইট জানিয়েছে, ‘টোর-এম২’ মডেলের অত্যাধুনিক এই বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে যাওয়া হয়েছে হেমেইমিম বিমানঘাঁটিতে। শক্তিশালী এবং গোপন এই ঘাঁটিতে রাশিয়ার বেশ কিছু অতযাধুনিক যুদ্ধবিমানও রাখা রয়েছে। প্রয়োজনে যাতে হঠাত করে এই ঘাঁটি থেকে হামলা করা যায় সেজন্যেই রাশিয়ার এই সিদ্ধান্ত।

Advertisement

সিরিয়ার ওপর মার্কিন সরকার ও তার পশ্চিম মিত্ররা ব্যাপকভাবে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে পারে বলে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ঘোষণা করার পর রাশিয়ার এই বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সেখানে নেওয়া হল। রুশ সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুসারে, সম্প্রতি রাশিয়ার কয়েকটি সামরিক পরিবহন বিমান সিরিয়ায় গিয়েছে। এসব বিমানে করে টোর-এম২ বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সিরিয়ায় নেওয়া হতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, সামরিক পরিবহন বিমানে করে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে যা আকাশে শত্রুর যে কোনও গোপন লক্ষ্যবস্তু ধ্বংস করতে পারে। শুধু তাই নয় এই ব্যবস্থা সিরিয়ার ওপর ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকাতেও সক্ষম।

----
--