আবশ্যিক মিলিটারি সার্ভিস থেকে বাঁচতে ওজন বাড়াচ্ছে পড়ুয়ারা

সিওল: ওজন বেশি বা কম হলে, অথবা শরীরে কোনওরকম রোগ বা অসুবিধা থাকলে পড়ুয়ারা আবশ্যিক মিলিটারি সার্ভিসে অংশগ্রহণ করতে পারে না দক্ষিণ কোরিয়ায়৷ এই সব তরুণদের কোর্ট, পাবলিক লাইব্রেরি, এইসব স্থানে কাজে নিযুক্ত করা হয়৷

আর এই ২১ মাসের আবশ্যিক মিলিটারি সার্ভিস এড়াতে দক্ষিণ কোরিয়ার ক্লাসিক্যাল মিউজিকের ১২ ছাত্র প্রোটিন, ফলের জুস খেতে শুরু করে, শারীরিক পরীক্ষার ঠিক আগের দিন৷

পড়ুন: চিজ নিষিদ্ধ করেই নাকি ঘুরে দাঁড়াবে নয়া পাকিস্তানের অর্থনীতি!

- Advertisement -

ওই ১২ পড়ুয়াকে অনলাইন চ্যাটরুমে ওজন বাড়ানোর টিপস্ দেয় তার সতীর্থরা৷ ওই পড়ুয়ারা অ্যালো ভেরা পালপ্ থেকে শুরু করে প্রোটিন পাওডার অনেককিছুই খেতে শুরু করে৷ শারীরিক পরীক্ষায় ১২জনের ওজন বেশি ধরা পড়ায় তাদের অন্য কাজে নিযুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ যার মধ্যে দুজনের কাজ প্রায় শেষ, চারজনের সেই কাজ চলছে এবং বাকি ছয় জন সরকারি কাজে নিযুক্ত হওয়ার অপেক্ষায়৷

তবে সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়, ডিজিটাল ফরেনসিক টেকনোলজির ব্যবহারে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে৷ তবে জানা গিয়েছে, ওই পড়ুয়াদের দোষ প্রমাণিত হলে তাদের আবার শারীরিক পরীক্ষা হবে এবং মিলিটারি সার্ভিস তাদের দিতে হবে, যা ২৮ বছর বয়সের মধ্যে ২১ মাসের জন্য আবশ্যিক দক্ষিণ কোরিয়ায়৷

Advertisement ---
-----