লন্ডন: ক্রিকেট ধ্যানে মগ্ন থাকায় নিজে স্কুলের গণ্ডি ছাড়িয়ে কলেজে ঢুকতে পারেননি৷ কিন্তু মেয়ের স্নাতক ডিগ্রিতে নস্টালজিক হয়ে পড়েন গর্বিত বাবা সচিন রমেশ তেন্ডুলকর৷

আরও পড়ুন: সচিন কি “ভারতরত্নের” যোগ্য? জানতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন

Advertisement

বাবা বাইশ গজে ব্যাট হাতে প্রচুর মাইলস্টোন পেরিয়েছেন৷ আর মেয়ে অ্যাকাডেমিতে গ্র্যাজুয়েশনের মাইলস্টোন টপকালেন৷ ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ লন্ডন (ইউসিএল) থেকে মেডিসিনে স্নাতক হয়েছেন সারা তেন্ডুলকর৷ মেয়ের স্নাতক হওয়ার খুশিতে সারার গ্র্যাজুয়েশন নিজেই মাথায় পড়ে নেন লিটল মাস্টার৷ শুধু তাই নয়, সেই ছবিও ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন কিংবদন্তি এই ক্রিকেটার৷

মেয়েকে স্ট্রেজে গ্র্যাজুয়েশন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে খুশি তেন্ডুলকর দম্পতি৷ সেই ছবি ইনস্টাগ্রামের পাশাপাশি টুইটারেও পোস্ট করে মেয়ের উদ্যেশে সচিন লিখেছেন, ‘মনে হচ্ছে গতকালই তুমি ইউনিভার্সিটির জন্য বাড়ি ছাড়লে৷ আর এখন তুমি গ্র্যাজুয়েট৷ অঞ্জলি এবং আমি তোমার জন্য গর্বিত৷ এবার বিশ্বকে জয় কর৷’

অতীতে সারার অভিনয়ে আসা নিয়ে যে গুজব ছড়িয়েছিল তাতে বিরক্ত প্রকাশ করেছিলেন সচিন৷ সেই খবর যে মিথ্যা তা পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন ক্রিকেটঈশ্বর৷ সচিন বলেছিলেন, ‘আমার মেয়ে সারা তার পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত৷ ফিল্মে ওর যোগ দেওয়া নিয়ে যে খবর বেড়িয়েছে তা ভিত্তিহীন৷’ পাশাপাশি টুইটারে সারার ফেক অ্যাকাউন্ট ডিলিট করার আবেদন করেন লিটল মাস্টার৷

আরও পড়ুন: গুরুর ভুমিকায় এসে অভিভূত সচিন

----
--