পালাবার সব রাস্তা বন্ধ করার হুঁশিয়ারি কেষ্টর

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: বীরভূমের কীর্ণাহারে স্থানীয় তৃণমূল নেতা সাগর শেখ হত্যায় ‘‘দোষীদের ছাড়া হবে না৷ কেউ পালিয়ে যেতে পারবে না৷’’ মঙ্গলবার নিহত সাগর শেখের বাড়িতে যান বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল৷ সেখানে গিয়েই নিহত নেতার পরিবারকে এই আশ্বাস দেন শাসক দলের এই দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতা৷

সাগর শেখ লাভপুরের ঠিবা অঞ্চলের নেতা৷ ব্লকস্তরে শাসক দলের কোর কমিটিরও সদস্য ছিলেন৷ সোমবার সন্ধ্যায় মেয়েকে নিয়ে ফিরছিলেন কীর্ণাহার থেকে৷ সেই সময় তিনি আক্রান্ত হন বলে অভিযোগ৷ কুঁয়ে নদীর বাঁধের উপর ঘটনাটি ঘটে৷ অভিযোগ, আচমকাই দুষ্কৃতীরা তাঁর উপর চড়াও হন৷ তার পর তাঁর উপর হামলা করে৷ প্রথমে তাঁকে গুলি করা হয়৷ তারপর শুরু হয় বোমাবাজি৷ ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান লাভপুরের ওই তৃণমূল নেতা৷

আরও পড়ুন: দশমাসের মেয়ের সঙ্গে মাকেও খুনের অভিযোগ সাগরদিঘিতে

এই হত্যার পিছনে আগেই সিপিএমের দিকে আঙুল তুলেছিলেন অনুব্রত মণ্ডল৷ এদিন নিহত নেতার বাড়িতে গিয়ে তৃণমূল জেলা সভাপতি বলেন, ‘‘অভিযুক্ত প্রত্যেককেই গ্রেফতার করা হবে৷ সাগরের হত্যাকারীদের কোনও মতেই ছাড়া হবে না৷’’

পঞ্চায়েত ভোটেই প্রমাণ, বীরভূমের মাটি তৃণমূলের ঘাঁটি৷ সেখানেই দলীয় নেতা হত্যার ঘটনায় যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ দলীয় কর্মীদের মনোবল ঠিক রাখতে আগামী সোমবার লাভপুরে সাগর শেখ হত্যার প্রতিবাদে ‘শোক সভা’র ডাক দেন অনুব্রত৷ নিহত নেতার স্ত্রী ও মেয়ে’র ভরনপোষনের দায়িত্ব দল নিয়েছে বলেও এদিন জানান জেলা তৃণমূল সভাপতি৷

সাগর শেখ হত্যার ঘটনায় মুখ খোলেনি পুলিশ৷ বিরোধীরা বলছে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের পরিণাম এই হত্যা৷ অনুব্রতর গড়ে তৃণমূল নেতা হত্যায় তাই যথেষ্ট বিরম্বনায় রাজ্যের শাসক দল৷ বিভিন্নস্তর থেকে উঠে আসছে নানান প্রশ্ন৷

-------
----