একই জেলে আসারাম-সলমন?

যোধপুর: কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় ৫ বছর জেল হয়েছে বলিউড সুপারস্টার সলমন খানের৷ বৃহস্পতিবার রাতটা তাঁর জেলেই কাটবে৷ আর এর পরই তুঙ্গে উঠেছে জল্পনা৷ কারণ সলমনকে যে জেলে নিয়ে যাওয়া হবে, সেখানে আগে থাকতেই রয়েছেন আসারাম বাপু৷ দুই সেলেব্রিটি কয়েদিকে একই জেলে রাখা হবে কিনা তা নিয়ে জল্পনা চলছে৷

১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করার জন্য অভিযুক্ত হয়েছিলেন ৫ জন৷ তাঁদের মধ্যে সইফ আলি খান, সোনালি বেন্দ্রে, নীলম ও টাবুকে বেকসুর খালাস করেছে যোধপুর আদালত৷ দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন শুধু সলমন খান৷ তাঁকে আদালত ৫ বছরের জেলের সাজা ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে৷ আজই সলমানকে আদালত চত্বর থেকে যোধপুর সেন্ট্রাল জেলে নিয়ে যাওয়া হবে৷ সেই জেলেই বর্তমানে রয়েছেন ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত আসারাম বাপু৷

২০১৩ সালের ৩ অগাস্ট থেকে যোধপুর সেন্ট্রাল জেলে বন্দি তিনি৷ ১৬ বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে৷ সেই বছরের গোড়ার দিকে ঘটনাটি ঘটে৷ ঘটনার ২ মাস পরে আশারাম বাপু ও তাঁর ছেলে নারায়ণ সাঁইকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়৷ অভিযোগ ওঠে, গুজরাতের সুরাতে নিজের আশ্রমে ওই ১৬ বছরের নাবালিকা ও তার বোনকে ধর্ষণ করেন তিনি৷ গান্ধীনগর আদালতে এখনও সেই মামলা চলছে৷

- Advertisement -

এই জেলে আর এক খ্যাতনামা কয়েদি হল শম্ভূলাল রেজার৷ এক মুসলিম ব্যক্তিকে আগুনে ফেলে দেওয়ার জন্য তাকে জেলের সাজা শোনানো হয়৷ সম্প্রতি সে জেল থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করেছে৷ সেখানে সে জানিয়েছে, জেলের মধ্যেই তাকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে৷ এই ঘটনার পর জেলের নিরাপত্তা ও তার ফাঁক নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে দিয়েছে৷

এই জেলে ইতিমধ্যেই রয়েছেন আসারাম বাপু৷ তার শিষ্যরা নিয়মিত গুরু দর্শনে আসছে৷ এছাড়া আরও বিভিন্ন ধরনের লোকের আনাগোনা রয়েছে জেলে৷ ফলে আসারামের প্রাণ সংশয়ও থেকে যাচ্ছে৷ আর এমন পরিস্থিতিতেই এই জেলে আনা হচ্ছে সুপারস্টার সলমান খানকে৷ এখন প্রশ্ন উঠছে, সলমন আর আসারামকে একই জেলে রাখা হবে কিনা৷ তবে জেল কর্তৃপক্ষ এখনও এনিয়ে মুখ খোলেনি৷

Advertisement ---
---
-----