ভলগোগার্ড: মহম্মদ সালাহের গোলেও বিশ্বকাপে জয়ের স্বাদ পেল না মিশর৷ উরুগুয়ে ও রাশিয়ার পর সোমবার ভলগোগার্ড এরিনায় গ্রুপের শেষ ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে ১-২ হেরে রাশিয়ায় বিশ্বকাপ অভিযান শুরু শেষ করল মিশর৷

১৯৯৪ বিশ্বকাপের পর ফের জয়ের স্বাদ পেল সৌদি আরব৷ মার্কিন মুলুকেই প্রথমবার বিশ্বকাপে খেলার ছাড়পত্র পেয়েছিল সৌদি আরব৷ প্রথমবারই দু’টি (মরক্কো ও বেলজিয়াম) ম্যাচ জিতে শেষ ষোলোয় পৌঁছেছিল এশিয়ার এই দেশটি৷ তার পর থেকে সোমবার বিশ্বকাপে জয়ের স্বাদ পেল সৌদি আরব৷ এদিন ম্যাচের অতিরিক্ত সময়েে সালেম আল-দসারির গোলে ফের বিশ্বকাপে জয়ের স্বাদ পেল তারা৷

গ্রুপের প্রথম দু’টি ম্যাচে হারায় আগেই নক-আউটের আশা শেষ হয়ে গিয়েছিল মিশর ও সৌদি আরব৷ তবে ধারেভারে এদিন ফেভারিট হিসেবে মাঠে নাম মিশর৷ ২২ মিনিটে সালাহর গোলে এগিয়ে যায় মিশর৷ কিন্ত প্রথমার্ধে ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতায় ফেরে সৌদি আরব৷

এর আগে একটি পেনাল্টি বাঁচালেও সবচেয়ে বেশি বয়সে বিশ্বকাপে খেলার রেকর্ড গড়া এই মিশরীয় গোলরক্ষক আল ফারাজের দ্বিতীয় পেনাল্টি শট আটকাতে পারেননি৷ তার পর দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত সময়ে আল দসারির গোলে জয়ের স্বাদ পেল সৌদি৷

গ্রুপ পর্বেই বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ পেনাল্টির রেকর্ড হয়েছে৷ মিশরের বিরুদ্ধে সৌদি আরবের ম্যাচে দুটি স্পট কিকের সিদ্ধান্তে  সর্বোচ্চ ১৮ পেনাল্টির রেকর্ড ছুঁয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপ৷ জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ায় ২০০২ বিশ্বকাপে ১৮টি স্পট-কিকের নির্দেশ দিয়েছিলেন রেফারি৷ ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপে সব মিলিয়ে পেনাল্টি হয়েছিল ১৩টি৷

এবার পেনাল্টির সংখ্যা বাড়ার পিছনে অবশ্য ভিএআর প্রযুক্তির ব্যবহারের বড় ভূমিকা রেখেছেন বিশেষজ্ঞরা৷ মিশরের বিরুদ্ধে সৌদি আরবের দ্বিতীয় পেনাল্টিও ভিডিও ফুটেজ দেখে নির্দেশ দেন রেফারি৷

----
--