জেলের শোচনীয় অবস্থা নিয়ে কেন্দ্র ও রাজ্যকে ভর্ৎসনা শীর্ষ আদালতের

নয়াদিল্লি: ভারতীয় জেল থাকার উপযুক্ত নয়৷ এই যুক্তিতে দেশে ফিরতে চান না নয় হাজার কোটি টাকা ব্যাংক ঋণখেলাপি বিজয় মালিয়া৷ এক্ষেত্রে অন্তত লন্ডন প্রবাসী বিজয় মালিয়া ভুল কিছু বলেননি৷ বরং তাঁর মতো সুপ্রিম কোর্টের পর্যবেক্ষণ দেশের জেলগুলির অবস্থা শোচনীয়৷ আর এই নিয়ে শীর্ষ আদালতে কড়া ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হল কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে৷

বৃহস্পতিবার বিচারপতি মদন বি লোকুর ও বিচারপতি দীপক গুপ্তার ডিভিশন বেঞ্চ এই সংক্রান্ত এক মামলার শুনানির সময় দেশের জেলগুলির শোচনীয় অবস্থা তুলে ধরেন৷ বিচারপতিদ্বয় মনে করেন, সবকিছুকে তামাশার পর্যায়ে নিয়ে আসা হয়েছে৷ তাঁরা বলেন, ‘‘একবার অন্তত জেল ও হোমগুলিতে যান৷ আধিকারিকদের বলুন অফিস থেকে বেরিয়ে নিজেদের চোখে জেল ও হোমগুলির অবস্থা দেখে আসুন৷ জলের কল নেই৷ থাকলেও কাজ করে না৷ শৌচালয় ব্যবহারের অনুপযুক্ত৷ সব জায়গা থেকে শোচনীয় দশা ফুটে উঠছে৷’’

শুধু তাই নয়৷ অনেক সময় অভিযোগ ওঠে বন্দিদের একাংশ জেলের ভিতর ভিআইপি মর্যাদায় দিন কাটায়৷ টিভি, এসি, ফ্রিজ ইত্যাদি যাবতীয় সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন তারা৷ এমন বহু ঘটনা মিডিয়ার মাধ্যমেও সামনে এসেছে৷ সম্প্রতি ইউনিটেক ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঞ্জয় চন্দ্র ও তাঁর ভাই অজয় চন্দ্র তিহার জেলে থাকাকালীন এই সব সুবিধা পেয়েছেন বলে মিডিয়ায় খবর হয়৷

এই সব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শীর্ষ আদালতের মন্তব্য, জেলগুলিতে কী কোনও সমান্তরাল প্রশাসন চলে? সব জায়গায় একই ছবি৷ তামিলনাড়ু থেকে বিহার বন্দিরা কারাগারের ভিতর বসে মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে, বাড়ির মতো স্বাচ্ছন্দ্যে দিন কাটাচ্ছেন৷ সব কিছুকে একেবারে তামাশার পর্যায়ে নিয়ে আসা হয়েছে৷ এরপরই কারগারগুলির উন্নয়নে কেন্দ্র ও রাজ্যকে ভর্ৎসনা করে সুপ্রিম কোর্ট৷ জানিয়েছে, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের উদাসীনতার কারণে জেল ও হোমগুলির এই অবস্থা৷

---- -----